নাগরপুর হাসপাতালের চিকিৎসক করোনায় আক্রান্ত

0
133
corona

টাঙ্গাইলের নাগরপুরে নতুন করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসকের শরীরে (আরএমও) করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে।

গত রোববার (৭ জুন) নাগরপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে কয়েকজনের নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকায় পাঠানো হয়। আজ শনিবার সকালে রিপোর্ট আসে নাগরপুরে নতুন করে একজনের শরীরে করোনাভাইরাসে শনাক্ত হয়েছে।

নতুন আক্রান্ত চিকিৎসক শাহেদ আল ইমরান নাগরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসক হিসেবে কর্মরত।

তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. রোকনুজ্জামান খান। তিনি বলেন, ‘উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক ডাক্তার (আরএমও) শাহেদ আল ইমরান করোনাকালীন সময় থেকে হাসপাতালে আগত রোগীদের স্বাস্থ্যসেবা দিয়ে যাচ্ছিলেন। হঠাৎ তার জ্বর, ঠাণ্ডার উপসর্গ দেখা দিলে আমরা গত ৬ জুন তার নমুনা সংগ্রহ করে ৭ জুন তার সাথে আরও অনেকের নমুনা ঢাকায় প্রেরণ করি।’

‘এর মধ্যে ১৩ জুন সকালে রিপোর্ট আসে ডাক্তার শাহেদ আল ইমরান করোনা পজিটিভ। এ নিয়ে বর্তমানে নাগরপুর উপজেলায় করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ৩১ জনে। এর মধ্যে ১০ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন। বাকিরা চিকিৎসাধীন রয়েছে’, বলেন তিনি।

ডা. মো. রোকনুজ্জামান খান বলেন, ‘ডাক্তার শাহেদ আল ইমরানকে নাগরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আইসোলেশনে রাখা হয়েছে।’

চিকিৎসক আক্রান্ত হলেও তিনি সাধারণ মানুষকে অভয় দিয়ে বলেন, ‘হাসপাতালের চিকিৎসা সেবাসহ অন্যান্য কার্যক্রম স্বাভাবিক রয়েছে। নাগরপুর উপজেলা ঢাকা ও মানিকগঞ্জ জেলার সীমান্তবর্তী উপজেলা। এ উপজেলায় গাজীপুর, ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ, সাভারসহ বিভিন্ন স্থান থেকে লোকজন এসেছে। মানুষ সচেতন না হওয়ায় করোনা রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। আক্রান্ত ব্যক্তিরা বিভিন্ন হাসপাতাল ও নিজ নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে রয়েছেন।’

তিনি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে উপজেলাবাসীকে স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার আহ্বান জানান।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY