আফগানিস্তানের পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে আইসিসি

0
76
আফগানিস্তানের পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে আইসিসি

জোরপূর্বক আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখল করেছে কট্টরপন্থী দল তালেবান। যে কারণে দেশটির আসন্ন টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ নিয়ে অনিশ্চয়তা বিরাজ করছিল। যদিও আফগানরা বিশ্বকাপে খেলার বিষয়ে নিশ্চয়তাও দিয়েছে আইসিসিকে। এমতাবস্থায় আফগানিস্তানের সংশ্লিষ্ট বিষয়ে নজর রাখছে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা, জানিয়েছে টাইমস অব ইন্ডিয়া।

বিধ্বস্ত দেশ আফগানিস্তান। গত বিশ বছর ধরেই সংঘাত চলছে দেশটিতে। ঘটনা নতুন মোড় নিয়েছে এই কয়দিন হলো, ক্ষমতা দখল করেছে তালেবানরা। এমন পরিস্থিতিতে রশিদ খানরা অক্টোবরে আসন্ন বিশ্বকাপে খেলতে পারবেন কিনা তা বড় প্রশ্ন ছিল সবার কাছে।

বোর্ডের মিডিয়া ম্যানেজার হিকামত হাসান বলেন, তারা টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করবেন। কদিনের মধ্য ক্রিকেটাররা অনুশীলনও শুরু করবে। কিন্তু উত্তাল আফগানিস্তানে অনুশীলন করা কতটা নিরাপদ হবে রশিদ খানদের সতীর্থদের জন্য সে প্রশ্ন কিন্তু থেকেই যাচ্ছে। ঠিক সে কারণেই আইসিসি নিয়মিত আফগান ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে চলেছে। তারা কাবুলের পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে।

সোমবার (১৬ আগস্ট) বোর্ডের মিডিয়া ম্যানেজার হিকামত হাসান জানিয়েছিলেন তারা বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করবেন। দলের খেলোয়াড়রাও শিঘ্রই অনুশীলন শুরু করবে বিশ্বকাপকে সামনে রেখে। তিনি বলেন, ‘আমাদের অস্ট্রেলিয়া, ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গে ত্রিদেশীয় সিরিজ রয়েছে। তার জন্য ভেন্যু খুঁজছি। এটাই কুড়ি ওভারের বিশ্বকাপের প্রস্তুতির সেরা মঞ্চ। আমরা শ্রীলঙ্কা ও মালয়েশিয়ার সঙ্গেও কথা বলছি এই সিরিজের জন্য। দেখা যাক কীভাবে সবটা হয়! আমরা পাকিস্তানে হামবানটোলায় খেলতে যাব। সেই সিরিজও হচ্ছে। এমন কী ঘরোয়া ক্রিকেটের টুর্নামেন্টও করতে চাই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রস্তুতির জন্য।’

তার আগে দেশে থাকা পরিবার নিয়ে শঙ্কা-উৎকণ্ঠা প্রকাশ করেছিলেন রশিদ খান। রশিদ খান ও মোহাম্মদ নবী দুজনেই এখন ইংল্যান্ডে দ্য হান্ড্রেডে খেলতে ব্যস্ত। এই দুজনের সম্পর্কে আফগান ক্রিকেট বোর্ডের মিডিয়া ম্যানেজার বলেছেন, ক্রিকেটারদের চিন্তার কোনো কারণ নেই। কাবুল সেভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়নি। ক্রিকেটারদের পরিবারের পাশে থাকার জন্য আফগান বোর্ড সবরকম ভাবে সাহায্য করবে বলেই আশ্বস্ত করেছেন তিনি।

উল্লেখ্য, ১৭ অক্টোবর থেকে শুরু হবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, মূল পর্বের খেলা মাঠে গড়াবে ২৩ অক্টোবর থেকে। এবারের আসরে প্রথম ম্যাচে মাঠে নামবে দক্ষিণ আফ্রিকা ও অস্ট্রেলিয়া।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY