আরব আমিরাতে যাওয়ার অনুমতি পাননি সরফরাজ

0
70
আরব আমিরাতে যাওয়ার অনুমতি পাননি সরফরাজ

মহামারির কারণে গত মার্চের শুরুতে মাঝপথেই বন্ধ হয়ে যায় পাকিস্তান সুপার লিগ (পিএসএল)। এতদিন পর টুর্নামেন্টটির অসমাপ্ত অংশ সংযুক্ত আরব আমিরাতে হতে যাচ্ছে।

টুর্নামেন্টে অংশ নিতে আবুধাবির উদ্দেশে বিমানবন্দরে গিয়েছিলেন পাকিস্তান দলের সাবেক অধিনায়ক ও পিএসএলের কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটর্সের অধিনায়ক সরফরাজ আহমদ।

কিন্তু অনুমতি না মেলায় আমিরাতে আর উড়ে যেতে পারেননি তিনি।

এমন বিড়ম্বনায় শুধু সরফরাজকেই পড়তে হয়নি, আরও কয়েকজন ক্রিকেটার ও সাপোর্টিং স্টাফকে আবুধাবিতে যাওয়ার অনুমতি দেয়নি আমিরাত সরকার। করাচিতে আটকা পড়েছেন তারা। সরফরাজসহ এ সংখ্যাটি ১৩ জন।

এ বিষয়ে পাকিস্তানের গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, ২৫ মে ক্রিকেটার ও সাপোর্টিং স্টাফদের নিয়ে দুটি চার্টার্ড বিমানে পাকিস্তান ছাড়ার কথা ছিল। কিন্তু পিসিবির চার্টার্ড বিমান দুটি আরব আমিরাতে অবতরণের অনুমতি পায়নি এখনও। ফলে এই জটিলতার সৃষ্টি হয়েছে। কবে সেই অনুমতি মিলবে আর কবে আরব আমিরাতে পৌঁছাবেন পাক ক্রিকেটাররা তা নিয়ে ধোঁয়াশা আছে এখনও।

কোয়ারেন্টিন পর্ব শেষ হওয়ার পরও বর্তমানে করাচিতে হোটেলে অপেক্ষা করতে হচ্ছে সরফরাজদের।

ইএসপিএনের এক রিপোর্টে প্রকাশ, ‘১১ ক্রিকেটার এবং কর্মকর্তাকে একটি বাণিজ্যিক বিমানের বোর্ডিং পাস দিতেই অস্বীকৃতি জানানো হয়। যাদের মধ্যে ছিলেন সরফরাজও। লাহোর ও করাচি থেকে এসব ক্রিকেটার এবং কর্মকর্তাকে বিমানে ওঠার কথা ছিল। কাতারের রাজধানী দোহা হয়ে বিমানটি আবুধাবি যাওয়ার কথা ছিল।’

তবে পিসিবির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, পাকিস্তান থেকে বাহরাইন হয়ে বিমানটি আবুধাবিতে যাওয়ার কথা।

১ জুন থেকে সংযুক্ত আরব আমিরাতে পিএসএলের বাকি অংশ মাঠে গড়ানোর কথা। গত ৮ মে প্লেয়ার্স ড্রাফটও অনুষ্ঠিত হয়েছে বাকি ২০ ম্যাচের জন্য।

ভেন্যুর বিষয়ে রাজি হলেও করোনাবিষয়ক বিধিনিষেধ নিয়ে জটিলতা ছিল। সংযুক্ত আরব আমিরাত সরকারের কাছ থেকে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে ছাড় পাচ্ছিল না পিসিবি। ফলে ছয় ফ্র্যাঞ্চাইজি ও অফিসিয়ালদের পাকিস্তান থেকে যাত্রা করার সূচি পিছিয়ে দিতে বলা হয়েছিল।

পরে সব ঝামেলা কেটে গেছে জানিয়ে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে পিসিবির প্রধান নির্বাহী ওয়াসিম খান বলেন, ‘পিএসএলের অসমাপ্ত অংশ আবুধাবিতে আয়োজনের পথে যেসব বাধা ছিল, সেগুলো আমরা পেরিয়ে গেছি এবং সব কিছু এখন প্রস্তুত।’

জানা গেছে, করোনার কারণে ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে আরব আমিরাতে প্রবেশের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। সেই নিয়মটি শিথিল করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে ঐকমত্যে পৌঁছেছেন পিএসএল আয়োজকরা।

এই দেশ দুটি থেকে আসরটি সম্প্রচারের সঙ্গে জড়িত যেসব স্টাফ আবুধাবিতে যাবেন, তাদের চার্টার্ড বিমানে নিতে হবে। খেলোয়াড়দের থেকে আলাদা হোটেলে কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে ১০ দিন। আর ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোর খেলোয়াড় ও কর্মকর্তাদের কোয়ারেন্টিনে থাকার মেয়াদ সাত দিন। তিনটি আলাদা হোটেলের প্রতিটিতে থাকবে দুটি করে দল।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY