ইংল্যান্ড-নিউজিল্যান্ড টেস্টে ম্যাচে থাকছে ১৮ হাজার দর্শক

0
38
ইংল্যান্ড-নিউজিল্যান্ড টেস্টে ম্যাচে থাকছে ১৮ হাজার দর্শক

করোনাভাইরাসকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে ঘুরে দাঁড়িয়েছে ইংল্যান্ড। কয়েকদিন আগেই দেশটির বিভিন্ন খেলা ইভেন্টে ২৫ শতাংশ দর্শক অংশ নিতে পারবে এমন ঘোষণা দেয়া হয়েছিল। পর্যায়ক্রমে সংখ্যাটা আরও বাড়নোর চেষ্টা চলছে। সরাসরি অনুমতি না দিয় পরীক্ষামূলভাবে সেই লক্ষ্যে পৌঁছতে যাচ্ছে ব্রিটিশ সরকার। ১০ জুন থেকে এজবাস্টনে বসছে ইংল্যান্ড-নিউজিল্যান্ড টেস্ট। এই ম্যাচে পরীক্ষা চালাতে চলেছে প্রশাশন।

বার্মিংহ্যামের এই ভেন্যুতে প্রতিদিন ১৮ হাজার দর্শক খেলা দেখতে পারবে গ্যালারিতে বসে। যা মোট আসনের ৭০ শতাংশ। দেশটির কোভিড বিধিনিষেধ শিথিল করার পরবর্তী ধাপে এজবাস্টন টেস্টকে পাইলট ইভেন্টের অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

সাদা পোশাকে দুই ম্যাচের সিরিজ খেলতে ইংল্যান্ডে অবস্থান করছে নিউজিল্যান্ড। এজবাস্টন টেস্টটি হচ্ছে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচ। লর্ডসে প্রথম ম্যাচটি বসবে আগামী ২ জুন। যদিও ওই ম্যাচে মাত্র ৭ হাজার তথা ২৫ শতাংশ দর্শক উপস্থিতিত হতে পারবে।

দ্বিতীয় টেস্টে স্টেডিয়ামে প্রবেশের আগে দর্শকদের টিকিটের সঙ্গে দেখাতে হবে শেষ ২৪ ঘন্টায় করা করোনা নেগেটিভ সনদ। দেশটিতে ল্যাটারাল ফ্লো মানের করোনা টেস্ট করানো হচ্ছে।

ইংল্যান্ড এবং ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড কর্মকর্তা টম হ্যারিসন বলেছেন, ‘ক্রিকেট মাঠে দর্শক প্রত্যাবর্তন খেলার স্বার্থে যেমন গুরুত্বপূর্ণ তেমনই সমর্থকদের জন্যও। গেল ১৫ মাস ধরে আমরা উপলব্ধি করেছি যে ক্রিকেটের সঙ্গে কত মানুষের জীবন জড়িয়ে থাকে। আগামী মাস থেকে স্টেডিয়ামে একটা বড় সংখ্যায় দর্শক ফিরিয়ে আনার ব্যাপারে আমরা মুখিয়ে রয়েছি।’

করোনা মহামারীর পর ইংল্যান্ডের মাটিতেই ফিরেছিল ক্রিকেট। তবে প্রশাসনের কঠোর গাইডলাইন মেনে গতবছরের পুরো সময়টাই স্টেডিয়ামে দর্শক প্রবেশে নিষিদ্ধ ছিল।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY