ইসরায়েলের নতুন মন্ত্রিসভায় ঠাঁই পাচ্ছেন এক ফিলিস্তিনি

0
63
ইসরায়েলের নতুন মন্ত্রিসভায় ঠাঁই পাচ্ছেন এক ফিলিস্তিনি

দুই মাস আগে নির্বাচন হওয়ার পর এখনও সরকার গঠিত হয়নি ইসরায়েলে। তবে দেশটির মধ্যপন্থী ইয়েশ আতিদ এবং চরম ডানপন্থী ইসরায়েল বেতেনু সরকার গঠনের ব্যাপারে একমত হয়েছে। জেরুজালেম পোস্ট জানিয়েছে, সোমবার রাতেই দুই দল এই জোট সরকার গঠনে সম্মত হয়।

ইসরায়েলি দৈনিকটি বলছে, এই সমঝোতার ফলে ইসরায়েল বেতেনুর নেতা আভিগদর লিবারমেন দেশটির অর্থমন্ত্রী হবেন। আর তার ডেপুটি ওকেদ ফোরের দায়িত্ব নেবেন নেসেট ফিনান্স কমিটির। ডানপন্থী এই দলটি আরও দুটি মন্ত্রণালয় পেতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সেক্ষেত্রে নেগেভ এবং গ্যালিলি ডেভেলপমেন্ট এবং আলিয়াহ অ্যান্ড ইন্টিগ্রেশন মন্ত্রণালয় পেতে পারে দলটি। এর আগে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু সরকার গঠনে ব্যর্থ হওয়ায় এ মাসের শুরুর দিকে ইয়েশ আতিদের প্রধান ইয়াইর লাপিদকে সরকার গঠন করতে বলা হয়।

জেরুজালেম পোস্ট জানায়, বিরোধী দলীয় নেতা তার পার্টিকে জানায় ‘চেষ্টার কোনও ত্রুটি’ করা হবে না। যদিও সরকার গঠন নিয়ে এখনও অনিশ্চয়তা রয়েছে। দৈনিকটি বলছে, সম্ভাব্য জোটের জন্য সব দলের সঙ্গেই যোগাযোগ অব্যাহত রেখেছে লাপিদের পার্টি।

এরপর ডানপন্থী ইয়ামিনা পার্টির প্রধান নাফতালি বেনেটকেও জোট সরকারে আহ্বান জানানো হবে। জোটে যোগ দিতে পারে লিকুদ পার্টি থেকে বেরিয়ে গিয়ে তৈরি হওয়া নিউ হোপ পার্টিও। পার্টির প্রধান গিদেয়ন সারকে সরকারে আসার প্রস্তাব দেয়া হতে পারে বলে জানা যাচ্ছে।

এদিকে মঙ্গলবার একটি সূত্র জানিয়েছে, বামপন্থী মেরটজ পার্টির ফিলিস্তিনি সাংসদ ইসাউয়ি ফ্রেজও এই সরকারের অংশ হতে পারে। যদি তিনি সরকারে যোগ দেন তাহলে তাকে আঞ্চলিক সহযোগিতা মন্ত্রণালয় দেয়া হতে পারে।

এমনটা ঘটলে নিউ হোপের কোনও আপত্তি নেই বলে জানিয়ে দিয়েছে তারা। তবে জোটের অন্য শরিকদের মধ্যে এ নিয়ে আপত্তি রয়েছে। ইয়ামিনা এটা নিয়ে তাদের অসন্তোষ প্রকাশ করেছে। তবে জায়োনিস্ট সাংসদ ইতামার বেন-ভির বলেছেন, ইসাউয়ি সিরিয়ায় গিয়ে মন্ত্রী হোক। সেখানে গিয়ে তিনি ভালো কাজ করবেন। তবে ইসরায়েলে নয়।

যদিও টাইমস অব ইসরায়েল জানিয়েছে, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি সূত্র চ্যানেল থার্টিনকে বলেছে- সরকার গঠনের বিষয়টি প্রায় চূড়ান্ত হয়ে গেছে। আমরা এখন বেনেটের জন্য অপেক্ষা করছি। কিন্তু হারিটজ বলছে, ব্লু অ্যান্ড হোয়াইট পার্টিসহ অন্য দলের সঙ্গে এখনও আলোচনা চলছে। কেননা সরকার গঠনে ফিলিস্তিনি রা’ম পার্টির ভূমিকা বেশ গুরুত্বপূর্ণ।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY