কঠোর লকডাউনে ‘ভুয়া পরিচয়ে’ বাড়ি ফিরছে মানুষ

0
75

ঢাকা-পাটুরিয়া মহাড়কের মানিকগঞ্জের শিবালয়ে কঠোর লকডাউন উপেক্ষা করে পাটুরিয়াগামী প্রাইভেটকারে দৈনিক একুশের বানী নামের একটি পত্রিকার ভুয়া স্টিকার লাগিয়ে যাত্রী বহন করছিল সজিব মুন্সী নামের একজন। উপজেলার বরংগাইল স্ট্যান্ডে শিবালয় সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তানিয়া সুলতানা প্রাইভেটকারটি (ঢাকা মেট্রো-১৯-৯৭৩৩) আটক করে। পরে অভিযান চালিয়ে আটক করা হয় এমন অনেকগুলো গাড়ি। যারা ভুয়া স্টিকার বা পরিচয়পত্র ব্যবহার করে যাতায়াত করছেন। এদের মধ্যে অধিকাংশই কঠোর লকডাউনে ফাঁকি দিয়ে বাড়ি ফিরছেন।

আজ রবিবার দুপুরে পেট্রোবাংলা, ডাকবিভাগের নগদসহ বিভিন্ন ওষুধ কম্পানি স্টিাকার লাগিয়ে অভিনব কায়দায় যাত্রী বহন করার দায়ে অন্তত ২০টি আটক করে পুলিশ। প্রতারণা করার সত্যতা পাওয়ায় সবাইকে দেওয়া হয়েছে মামলা।

এদিকে, পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ও আরিচা-কাজীরহাট নৌ-রুটে জরুরি সার্ভিসের ও পণ্যবাহী পরিবহন ছাড়া সকল ধরনের যানবাহন ও যাত্রী পারপার বন্ধ ছিল।

শিবালয় সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তানিয়া সুলতান বলেন, করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে সরকারের দেওয়া কঠোর লকডাউন বাস্তবায়নে মহাসড়কে কাজ করে যাচ্ছে মানিকগঞ্জের পুলিশ। লকডাউন বাস্তবায়নে মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে পুলিশের চেক পোস্ট বসানো হয়। এসময় সজিব মুন্সী নামের প্রাইভেটকার ড্রাইভারের গাড়িতে ‘একুশের বানী’ নামের একটি পত্রিকার ভুয়া স্টিকার লাগিয়ে যাত্রী বহন করছিল। পরে তাকে জিজ্ঞাসাবাদে প্রতারণার প্রমাণ মেলে। তাকে ট্রাফিক আইনে মামলা দেওয়া হয়েছে।

একই কায়দায় ডাকবিভাগ নগদের স্টিাকার লাগিয়ে প্রাইভেটকারে যাত্রী বহন করছে এক ড্রাইভার। তাকে জিজ্ঞাবাদ করলে শিবালয় উপজেলার সরকারদলীয় এক প্রভাবশালী নেতার পরিচয় দিয়ে যেতে চায়। অন্য সবার মত তাকেও মামলা দেওয়া হয়।

এছাড়া পেট্রোবাংলাসহ কয়েকটি ওষুধ কোম্পানীর ভুয়া স্টিকার লাগিয়ে যাত্রী বহনের দায়ে অন্তত ২০টি যানবাহনের বিরুদ্ধে মামলা দেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

 

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY