কার্তিক-করনের দ্বন্দ্ব চরমে

0
35

বলিউডের স্বনামধন্য নির্মাতা করন জোহর ও বর্তমান সময়ের অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেতা কার্তিক আরিয়ান। এই দুজনের দ্বন্দ্ব এখন চরমে।

করন জোহর প্রযোজিত ‘দোস্তানা টু’ সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ হয়েছিলেন কার্তিক। সিনেমার কিছু অংশের শুটিংও করেছেন তিনি। কিন্তু সম্প্রতি এটি থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন এই অভিনেতা। যদিও শোনা যাচ্ছে, অপেশাদার আচরণ ও শুটিং সেটে বাড়াবাড়ির কারণে কার্তিককে বাদ দেওয়া হয়েছে।

এদিকে ইতোমধ্যে ‘দোস্তানা টু’ সিনেমায় কার্তিকের পরিবর্তে অন্য একজন অভিনেতাকে নেওয়া হবে বলে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়েছে করনের ধর্মা প্রোডাকশন। এখানেই শেষ নয়, ফটো ও ভিডিও শেয়ারিং সাইট ইনস্টাগ্রামে কার্তিককে আনফলো করেছেন করন। এছাড়া ভবিষ্যতে করন ‘সোনু কে টিটু কি সুইটি’ সিনেমাখ্যাত এই অভিনেতার সঙ্গে আর কাজ করবে বলে জানা গেছে।

যদিও এ বিষয়ে কার্তিক এখনো কোনো বক্তব্য দেননি। তবে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে করনকে নানাভাবে কটাক্ষ করছেন কার্তিক আরিয়ান ভক্তরা। বলিউডে স্বজনপ্রীতি ও পক্ষপাতিত্বের বিষয় নিয়ে সব সময়ই সোচ্চার অভিনেত্রী কঙ্গনা রাণৌত। এ নিয়ে করন জোহরকে প্রায়ই খোঁচা দেন তিনি। মাইক্রোব্লগিং সাইট টুইটারে কার্তিক আরিয়ানের পাশে দাঁড়িয়েছেন ‘কুইন’ অভিনেত্রী।

টুইটে কঙ্গনা লিখেছেন, ‘কার্তিক নিজের যোগ্যতায় এতদূর এসেছে, নিজেই এগিয়ে যাবে। পাপা জো (করন জোহর) ও তার স্বজন গ্যাংদের কাছে অনুরোধ, তাকে একা ছেড়ে দিন। সুশান্ত সিং রাজপুতের মতো তার পিছে পড়বেন না। তাকে একা ছেড়ে দাও শকুনের দল, দূর হয়ে যাও। এই বাচ্চাদের ভয় পাওয়ার কিছু নেই কার্তিক। তোমাকে দোষারোপ করে সংবাদ প্রকাশ ও অপেশাদার ঘোষণা করে এখন তারা চুপ করে আছেন। তারা সুশান্তের ব্যাপারেও অপেশাদার আচরণ ও মাদক সেবনের গল্প ছড়িয়েছিল।’

অপর এক টুইটে তিনি লেখেন, ‘আমরা তোমার সঙ্গে আছি। যে তোমাকে গড়েনি, সে ভাঙতেও পারবে না। আজ তোমার হয়তো একা লাগছে এবং সবাই দোষারোপ করছে, তবে সবাই এই ড্রামা কুইন জো-কে চেনে। তুমি অনেক ভালো কাজ করছো। নিজের দক্ষতার ওপর বিশ্বাস রাখো। অনেক ভালোবাসা।’

২০০৮ সালে মুক্তি পাওয়া ‘দোস্তানা’ সিনেমার সিক্যুয়েল ‘দোস্তানা টু’। প্রথম সিনেমাটিতে অভিনয় করেন অভিষেক বচ্চন, প্রিয়াঙ্কা চোপড়া ও জন আব্রাহাম। অন্যদিকে ‘দোস্তানা টু’ সিনেমায় অভিনয় করছেন জানভি কাপুর ও নবাগত লক্ষ্য লাওয়ানি। সিনেমাটি পরিচালনা করছেন কলিন ডিকুনহা।

 

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY