তানজিলার বিয়ে হলো ইউনিয়ন পরিষদ মঞ্চে

0
95
তানজিলার বিয়ে হলো ইউনিয়ন পরিষদ মঞ্চে

চারদিকে বিয়ের সাজ। সাজানো হয়েছে বিয়ের মঞ্চ। দুই শতাধিক মানুষের ভূরিভোজের আয়োজন। মাইকে বাজছে বিয়ের গান। পরিপাটি হয়ে আসছে এলাকার লোকজন। কোনো বাড়িতে নয়, বিয়ের অনুষ্ঠান হচ্ছে ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরের মঞ্চে।

আর ওই বিয়ের সব আয়োজন করেছেন ইউপি চেয়ারম্যান। যার বিয়ে হচ্ছে তিনি অসহায় এক পরিবারের মেয়ে। মা হারা অসহায় মেয়ের বিয়ের বর্ণাঢ্য আয়োজন করে প্রশংসায় ভাসছেন যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার নারিকেলবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা তাঁতী লীগের সভাপতি আবু তাহের আবুল সরদার।

ব্যক্তিগত তহবিল থেকে এ বিয়ের আয়োজন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ওই ইউপি চেয়ারম্যান। বিয়ের পর নতুন দম্পতির সংসার কিভাবে চলছে সে বিষয়েও খোঁজ রাখবেন বলে জানান তিনি।

শুক্রবার (২৮ মে) দুপুরে নারিকেলবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে আয়োজন করা হয় এ বিয়ে অনুষ্ঠানের। বর যশোর সদর উপজেলার চাঁচড়া ইউনিয়নের বেরবাড়িয়া গ্রামের ফজর উদ্দিনের ছেলে আরিফুল হোসেন (২২)। তিনি পেশায় অটোভ্যানচালক। আর কনে নারিকেলবাড়িয়া ইউনিয়নের নারিকেলবাড়িয়া গ্রামের মনিরুল মোল্লার মেয়ে তানজিলা খাতুন (২০)।

স্থানীয় বাসিন্দা ও বিয়ের ঘটক আজাদ সরদার জানান, তানজিলার মা মারা যাওয়ার পর তার বাবা আরেকটি বিয়ে করে অন্যত্র চলে যায়। তানজিলাকে রেখে যায় বৃদ্ধ নানীর কাছে। সেখানেই সে বড় হয়। চতুর্থ শ্রেণি পর্যন্ত পড়ার পর আর পড়া হয়নি। আড়াই বছর আগে একবার বিয়েও হয়েছিল তানজিলার। কিন্তু মাত্র চারদিন সংসার করার পর ঘর ভাঙে তার। এরপর আগের মতো নানীর সাথে মানুষের বাসায় কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করতে থাকে।

সম্প্রতি বিয়ে ঠিক করে স্থানীয় চেয়ারম্যানকে জানালে চেয়ারম্যান আবু তাহের আবুল সরদার ইউনিয়ন পরিষদে বিয়ে দেওয়ার আয়োজন করে সব খরচ বহন করার প্রতিশ্রুতি দেন।

এ ব্যাপারে নারিকেলবাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা তাঁতী লীগের সভাপতি আবু তাহের আবুল সরদার বলেন, সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে অসহায় পরিবারের মেয়ের বিয়ের আয়োজন করতে পেরে ভালো লাগছে। তারা যেন সুখে-শান্তিতে বসবাস করতে পারে সে দোয়া করি।

ব্যতিক্রম এ বিয়েতে আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাঘারপাড়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ভিক্টোরিয়া পারভীন সাথী, পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহবায়ক ফয়সাল আহমেদ মিল্টন, উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক জুলফিকার আলী জুলাই, উপজেলা যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আলমগীর সিদ্দিকী, স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা আছাদুজ্জামান চিশতি প্রমুখ।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY