ধর্ষণচেষ্টার মামলা না নি‌য়ে মোবাইল কো‌র্টে সাজা, ওসিকে আদাল‌তে তলব

0
57
ধর্ষণচেষ্টার মামলা না নি‌য়ে মোবাইল কো‌র্টে সাজা, ওসিকে আদাল‌তে তলব

কি‌শোরগ‌ঞ্জের পাকু‌ন্দিয়ায় ধর্ষণচেষ্টার ঘটনায় অভিযুক্ত ব্য‌ক্তির বিরু‌দ্ধে মামলা না ক‌রে মোবাইল কো‌র্টের কা‌ছে সোপর্দ করার অভিযোগে থানার ওসিকে আদাল‌তে তলব করা হয়েছে। ‌বুধবার (২৬ মে) স্ব-প্র‌ণো‌দিত হয়ে কি‌শোরগ‌ঞ্জের ৩ নং আমল গ্রহণকা‌রী আদাল‌তের বিচারক সি‌নিয়র জু‌ডি‌শিয়াল ম্যা‌জি‌স্ট্রেট সাদ্দাম হো‌সেন এ নি‌র্দেশ দেন।

নি‌র্দে‌শে পাকু‌ন্দিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সা‌রোয়ার জাহান‌কে আগামী তিন কার্য দিব‌সের ম‌ধ্যে আদাল‌তে উপস্থিত হ‌য়ে ঘটনার ব্যাখ্যা দি‌তে বলা হ‌য়ে‌ছে। ‌কি‌শোরগ‌ঞ্জের সি‌জেএম কো‌র্টের একজন সি‌নিয়র জু‌ডি‌শিয়াল ম্যা‌জি‌স্ট্রেট নাম প্রকাশ না করার শ‌র্তে এ ত‌থ্যের সত্যতা নি‌শ্চিত ক‌রে‌ছেন।

‌তি‌নি জানান, গত মঙ্গলবার (২৫ মে) জেলার পাকু‌ন্দিয়া উপ‌জেলায় এক নারী‌কে ধর্ষণ‌ের চেষ্টার ঘটনা ঘ‌টে। এ ঘটনায় স্থানীয়রা অভিযুক্ত যুবক‌কে আটক ক‌রে থানায় সোপর্দ ক‌রে। পাকু‌ন্দিয়া থানার ওসি বিদ্যমান আইন অনুযা‌য়ী নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে নিয়‌মিত মামলা রুজু না ক‌রে এবং আসা‌মি‌কে কো‌র্টে হা‌জির না ক‌রে তা‌কে মোবাইল কো‌র্টের কা‌ছে সোপর্দ ক‌রেন।

পাকু‌ন্দিয়া উপ‌জেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ও প্রথম শ্রে‌ণির ম্যা‌জি‌স্ট্রেট মোবাইল কো‌র্টের মাধ্য‌মে অভিযুক্ত যুবক‌কে ৫০৯ ধারায় দো‌ষী সাব্যস্ত ক‌রে দুই বছ‌রের জেল দি‌য়ে কারাগা‌রে পাঠান। এ ঘটনা এক‌টি জাতীয় দৈ‌নিকে প্রকা‌শিত হ‌লে বিষয়টি আদাল‌তের নজ‌রে আসে। আদালত স্ব-প্র‌ণো‌দিত হ‌য়ে আইন অমান্য করায় ওসি‌কে আদাল‌তে হা‌জির হ‌য়ে ব্যাখ্যা দেয়ার নির্দেশ দেন।

আদালত সূ‌ত্রে জানা গে‌ছে, নির্বাহী ম্যা‌জি‌স্ট্রেট ভ্রাম্যমাণ আদাল‌তে ৫০৯ ধারায় ২ বছ‌র কারাদ‌ণ্ডের যে রায় দি‌য়ে‌ছেন; সে‌টিও আইন‌সিদ্ধ হয়‌নি। এটির এখ‌তিয়ার মোবাইল কো‌র্টের নেই। এছাড়া এ ধারায় স‌র্বোচ্চ সাজা দেয়ার ক্ষমতা হ‌চ্ছে এক বছর।

এ ব্যাপা‌রে কথা হ‌লে পাকু‌ন্দিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সা‌রোয়ার জাহান তার বিরু‌দ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার ক‌রে জানান, উপ‌জেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অভি‌যোগ পে‌য়ে পু‌লিশসহ ঘটনাস্থ‌লে গি‌য়ে মোবাইল কো‌র্টের মাধ্য‌মে সাজা দেন। পু‌লিশ আদাল‌তের কা‌জে সহ‌যো‌গিতা ক‌রে। সাজা দেয়ার পর নিয়ম অনুযা‌য়ী আসা‌মি‌কে কারাগা‌রে পাঠা‌নো হয়। স্থানীয়রা অভিযুক্ত‌কে আটক ক‌রে থানায় সোপর্দ করার অভি‌যোগ সত্য নয় উল্লেখ ক‌রে ওসি ব‌লেন, ‘এক‌টি প‌ত্রিকায় ভুল তথ্য প্রকা‌শিত হওয়ায় এমনটা হ‌য়ে‌ছে। আমি আদাল‌তে হা‌জির হ‌য়ে বিষয়টি ব্যাখ্যা কর‌বো।’

এ ব্যাপা‌রে মতামত জান‌তে পাকু‌ন্দিয়া উপ‌জেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) একেএম লুৎফর রহমানের সঙ্গে যোগা‌যো‌গের চেষ্টা করা হ‌লেও মোবাইল ফোন রি‌সিভ না করায় তার বক্তব্য জানা যায়‌নি।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY