নারায়ণগঞ্জে তিন ভাইয়ের ধস্তাধস্তি, ছুরি ঢুকে এক ভাইয়ের মৃত্যু

0
50
 নারায়নগঞ্জে তিন ভাইয়ের ধস্তাধস্তি, ছুরি ঢুকে এক ভাইয়ের মৃত্যু

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে মাদকের টাকার জন্য মা-বাবাকে মারধর করতে গিয়ে তিন ভাইয়ের ধস্তাধস্তিতে ছুরি পেটে ঢুকে মাদকাসক্ত বড় ভাইয়ের মৃত্যু হয়েছে।

শুক্রবার (২৮ মে) দুপুরে উপজেলার জামপুর ইউনিয়নের জামপুর গুদারাঘাট গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। তিন ভাইয়ের ধস্তাধস্তিতে ছুরিকাঘাতে আহত হয়ে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে তার মৃত্যু হয়।

ঘটনার পর জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (খ-অঞ্চল) মো. বিল্লাল হোসেন ও সোনারগাঁও থানার ওসি মো. হাফিজুর রহমানসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানান, উপজেলার জামপুর ইউনিয়নের শাহ জামালের ছেলে কিরণ (৩০) দীর্ঘদিন ধরে মাদক সেবন করে আসছে। বিভিন্ন সময়ে মাদকাসক্ত হয়ে তার বাবা মাকে মারধর করে আহত করে। তার অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে ওই পরিবার। মাদকাসক্ত কিরণের অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে তার স্ত্রী তাকে ছেড়ে চলে যায়। শুক্রবার জুমা’র নামাজের পর কিরণ তার বাবা মাকে মাদকের টাকার জন্য অকথ্য ভাষায় গালমন্দ ও মারধর করতে থাকে। তার মারধরে তার মায়ের হাত ভেঙে যায়। এক পর্যায়ে কিরণ তার বাবাকে ছুরি নিয়ে আঘাত করতে গেলে বড় ভাই মেহেদী হাসান ও গাব্বা তাদের বাবাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসে। এসময় মাদকাসক্ত কিরণের সাথে এই দুই ভাইয়ের মধ্যে ধস্তাধস্তি হয়। এক পর্যায়ে কিরণের নিজের হাতের ছুরি তার পেটেই ঢুকে যায়।

পরে আহত অবস্থায় কিরণকে আড়াইহাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে অবস্থা গুরুতর হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পরামর্শ দেন। এ অবস্থায় কিরণকে ঢাকা মেডিকেলে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। ঘটনার পর থেকে ওই বাড়ির লোকজন পালিয়ে যায়।

খবর পেয়ে নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (খ-অঞ্চল) মো. বিল্লাল হোসেন, সোনারগাঁও থানার ওসি মো. হাফিজুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করেন।

এ ব্যাপারে সোনারগাঁও থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. হাফিজুর রহমান জানান, নিহত কিরণ মাদকাসক্ত ও বিকৃত মস্তিষ্কের ছিল। বিভিন্ন সময়ে মাদকের টাকার জন্য নিজের মা বাবাকে মারধর করতো। মাদকের টাকার জন্য দুপুরে ছুরি নিয়ে মারধর করতে গেলে ভাইদের সঙ্গে ধস্তাধস্তিতে ছুরিকাঘাতে আহত হয়। পরে ঢাকা নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY