পাকিস্তানের হস্তক্ষেপের বিরুদ্ধে উত্তাল আফগান রাজপথ

0
71
পাকিস্তানের হস্তক্ষেপের বিরুদ্ধে উত্তাল আফগান রাজপথ

সরকার গঠনে পাকিস্তানের হস্তক্ষেপের প্রতিবাদে উত্তাল আফগানিস্তানের রাজপথ। দেশটিতে দিন দিন জোরালো হচ্ছে ইসলামাবাদবিরোধী আন্দোলন। পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই-এর মদদে চলছে তালেবান – এমন অভিযোগও করেন তারা।

এদিকে পশ্চিমাঞ্চলীয় হেরাতে বিক্ষোভে তিনজন নিহত হয়েছেন। আহত বেশ কয়েকজন। রাজধানী কাবুলেও তালেবানের রোষানলে পড়েন প্রতিবাদকারীরা। তবে রাজনৈতিক সমাধানের কথা বলছে পাকিস্তান।

কাবুল থেকে হেরাত – সর্বত্রই এখন পাকিস্তানবিরোধী বিক্ষোভ। হেরাতে বিক্ষোভে ঘটে হতাহতের ঘটনা। তালেবান চড়াও হলে শেষ পর্যন্ত পিছু হটতে বাধ্য হয় বিক্ষোভকারীরা। তবে বিক্ষুব্ধরা বলছেন, তারা তাদের আন্দোলন চালিয়ে যাবেন।

মূলত তালেবান সরকারে পাকিস্তানের মদদের প্রতিবাদে জোরালো হয়েছে বিক্ষোভ। কাবুলের সরকারে ইসলামাবাদ কেন তাদের প্রভাব বলয় তৈরি করেছে তার প্রতিবাদেই রাস্তায় নামে আফগানরা।

তবে পাকিস্তানের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে – ইসলামাবাদ চায় রাজনৈতিক সমাধান। এতে দোষের কিছু নেই।

চীনে নিযুক্ত পাকিস্তানের রাষ্ট্রদূত মঈন উল হক বলেন, আফগানিস্তানে সামরিক কোনো সমাধান চলবে না। এটা প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান একাধিকবার বলেছেন। আমরা তালেবান গোষ্ঠীকে আহ্বান জানাব – আপনারা আলোচনা জারি রাখুন। সব জাতিগোষ্ঠীকে গুরুত্ব দিন। রাজনৈতিক সমাধানের পথে হাঁটুন।

রাজধানী কাবুলও বিক্ষোভে উত্তাল। বিক্ষোভকারীদের একটি বড় অংশই নারী। এদিকে নারীদের বাদ দিয়ে জাতিসংঘের কালো তালিকাভুক্ত ও মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআইয়ের মোস্ট ওয়ান্টেড ব্যক্তিদের নেতৃত্বে আফগানিস্তানের অন্তর্বর্তী সরকার গঠন করায় উদ্বেগ জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

এদিকে নতুন আফগানিস্তান নিয়ে চীন, পাকিস্তান, রাশিয়া ও ইরানের হস্তক্ষেপের বিষয়টি গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার তিন সপ্তাহ পর নতুন ইসলামি আমিরাত অব আফগানিস্তানের অন্তর্বর্তী সরকার গঠন করল তালেবান। শুরু থেকেই নেতৃত্বে মোল্লাহ আব্দুল গনি বারাদারের নাম আসলেও অন্তর্বর্তী সরকারের ভারপ্রাপ্ত প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে মোল্লাহ হাসান আকুন্দকে।

বারাদার ও আব্দুল সালাম হানাফি হয়েছেন ভারপ্রাপ্ত উপপ্রধানমন্ত্রী। গুরুত্বপূর্ণ প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর দায়িত্ব পেয়েছেন তালেবানের সহপ্রতিষ্ঠাতা মোল্লাহ মোহাম্মদ ওমরের ছেলে মোল্লাহ মোহাম্মদ ইয়াকুব।

হাক্কানি নেটওয়ার্কের প্রতিষ্ঠাতার ছেলে সারাজউদ্দিন হাক্কানি পেয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব। সবগুলো পদ ভারপ্রাপ্ত বলে অন্তর্বর্তী সরকার এখনো চূড়ান্ত নয় উল্লেখ করে তালেবান মুখপাত্র জানান, শিগগিরই বাকি মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্তদের নামও ঘোষণা করা হবে।

মঙ্গলবার অন্তর্বর্তী সরকার গঠনের পরপরই মন্ত্রীদের ইসলামিক আইন বা শরীয়া আইন বাস্তবায়নের নির্দেশ দেন তালেবানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা মাওলায়ি হিবাতুল্লাহ আখুন্দজাদা। দেশের স্বার্থ ও ইসলামিক আইনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক নয় এমন আন্তর্জাতিক আইন ও চুক্তি মেনে চলারও কথা জানিয়ে বিশ্ব সম্প্রদায়ের সহযোগিতা কামনা করেছে তালেবান।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY