পুলিশি বাধায় আইন মন্ত্রণালয় ঘেরাও কর্মসূচি এগোতে পারেনি

0
106
পুলিশি বাধায় আইন মন্ত্রণালয় ঘেরাও কর্মসূচি এগোতে পারেনি

বামপন্থী নয়টি ছাত্র সংগঠন ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবিতে আইন মন্ত্রণালয় ঘেরা করতে গেলে পুলিশি ব্যারিকেডে এগোতে পারেনি। এতে ছাত্র সংগঠনগুলো ব্যারিকেডের সামনে বসে আগামীকাল বুধবার বৃহত্তর আন্দোলন করার হুঁমকি দেয়।

মঙ্গলবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্য হয়ে মিছিলটি জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে দিয়ে সচিবালয়ের মোড়ে পৌঁছায়৷ সেখানে আগে থেকে ব্যারিকেড দিয়ে অবস্থানে ছিল পুলিশ৷ বাম সংগঠনগুলোর নেতা-কর্মীরা ব্যারিকেড ভেঙে প্রবেশের চেষ্টা করলেও পুলিশের বাধার মুখে আর সামনে এগোতে পারেনি৷ পরে সেখানেই শুরু হয় বিক্ষোভ সমাবেশ৷

বিক্ষোভ সমাবেশে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক মোহাম্মদ তানজীমউদ্দিন খান বলেন, রাজনৈতিক দল রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় এসে এতোটাই জুলুম চালায় যা বিগত সরকারের জুলুমের স্মৃতিগুলো মানুষ ভুলে যায়। ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলন দমনের জন্য অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্টের আদলে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন তৈরি করা হয়েছে।

বামপন্থী ছাত্রসংগঠনের মোর্চা প্রগতিশীল ছাত্রজোটের সমন্বয়ক ও সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের (বাসদ) কেন্দ্রীয় সভাপতি আল কাদেরী বলেন, আওয়ামী লীগ ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের নামে যা করছে, তা সম্পূর্ণ অবৈধ ও সংবিধানবিরোধী৷

সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের (মার্ক্সবাদী) কেন্দ্রীয় সভাপতি মাসুদ রানার সভাপতিত্বে ও ছাত্র ফেডারেশনের (মুক্তি কাউন্সিল) কেন্দ্রীয় সভাপতি মিতু সরকারের সঞ্চালনায় সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন বিপ্লবী ছাত্রমৈত্রীর কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক দিলীপ রায়, ছাত্র ফেডারেশনের (গণসংহতি আন্দোলন) কেন্দ্রীয় সভাপতি গোলাম মোস্তফা, গণতান্ত্রিক ছাত্র কাউন্সিলের কেন্দ্রীয় সভাপতি আরিফ মঈনুদ্দীন, ছাত্র ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক সুমাইয়া সেতু, বিপ্লবী ছাত্র-যুব আন্দোলনের দপ্তর সম্পাদক আব্দুল মোমিন প্রমুখ।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY