পুলিশের ব্যাপক ধরপাকড় উত্তাল মিয়ানমার, গ্রেপ্তার বহু

0
44

উত্তাল মিয়ানমারে ব্যাপক ধরপাকড় অভিযান শুরু করেছে দেশটির পুলিশ। সবচেয়ে বড় ধরপাকড় অভিযানে শনিবার পর্যন্ত বহু মানুষকে আটক করা হয়েছে। অভিযান চলাকালে পুলিশ গুলি চালালে এক নারী গুলিবিদ্ধ হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন। এ ছাড়াও ওই ঘটনায় আরো অনেক আহত হয়েছেন। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

মিয়ানমারের রাজনীতিবিদ কিয়া মিন হিটেক রয়টার্সকে জানিয়েছেন, দাউই শহরে বিক্ষোভকারীদের ওপর পুলিশ গুলি চালিয়েছিল। ওই ঘটনায় একজন প্রাণ হারিয়েছেন। এছাড়াও বহু মানুষ আহত হয়েছেন। দাউই ওয়াচ সংবাদমাধ্যমও বলছে, গুলি চালানোর ঘটনায় একজন নিহত হয়েছেন এবং এক ডজনেরও বেশি আহত হয়েছেন।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জতিসংঘে নিযুক্ত মিয়ানমারের দূত অভ্যুত্থানকারীদের থামাতে ‘প্রয়োজনীয় যে কোনো ব্যবস্থা নিতে’ জাতিসংঘকে আহ্বান জানানোর একদিন পর সহিংসতার এ ঘটনা ঘটেছে। এছাড়া মিয়ানমার প্রশ্নে জাতিসংঘের এক বিশেষ বৈঠকে সব সদস্য রাষ্ট্রকে অভ্যুত্থানের নিন্দা জানিয়ে প্রকাশ্যে বিবৃতি দেওয়ার তাগিদ দেন তিনি। এদিকে, এই ধরনের আহ্বান জানানোর একদিন পরই জতিসংঘে নিযুক্ত মিয়ানমারের ওই দূতকে বিশ্বাসঘাতকতার দায়ে বরখাস্ত করা হয়েছে।

এ ছাড়াও মিয়ানমারের দূতের আহ্বানের পর বিক্ষোভ ঠেকাতে মরিয়া হয়ে ওঠে মিয়ানমারের পুলিশ। প্রধান শহর ইয়াঙ্গুনসহ যেসব স্থানে সাধারণত বিক্ষোভকারীরা সমবেত হয়ে থাকেন শনিবার সকাল থেকেই সেসব স্থানের দখল নিয়ে নেয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন সমবেত হওয়ার চেষ্টা করলেই বিক্ষোভকারীদের আটক করা হয়।

এক বিক্ষোভকারী জানান, বিক্ষুব্ধদের ঘিরে রেখে তাদের ওপর জল কামান প্রয়োগ করা হয়েছে। আয় আয় টিন্ট নামের বিক্ষোভকারী বলেন, শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভকারীদের ওপর জল কামান ব্যবহার করা হয়েছে- মানুষের সঙ্গে এরকম আচরণ তারা করতে পারে না।

রয়টার্স জানিয়েছে, এসব ঘটনায় নিয়ে এখনো কোনো ধরনের বক্তব্য পাওয়া যায়নি মিয়ানমারের সেনাবাহিনী কিংবা পুলিশ বাহিনীর পক্ষ থেকে।

সূত্র: রয়টার্স।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY