বখাটের পেট্রোলে ঝলসে গেল মা-মেয়ে

0
87
বখাটের পেট্রোলে ঝলসে গেল মা-মেয়ে

ভোলায় প্রেমের প্রস্তারে রাজি না হওয়ায় তরুণীর গায়ে পেট্রোল ঢেলে আগুন দেয় এক বখাটে। এ সময় মেয়ের চিৎকারে তাকে বাঁচাতে গিয়ে ঝলসে গেছে মায়ের শরীরও।

আহত মা-মেয়েকে প্রথমে লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলেও পরে উন্নত চিকিৎসার জন‌্য ঢাকায় নেওয়া হচ্ছে বলে জানা গেছে।

শনিবার (২১ আগস্ট) রাতে উপজেলার পশ্চিম চরউমেদ ইউনিয়নের গজারিয়া বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন, মোসা. জান্নাতুন নাঈমা (২২) ও তার মা নাজমা বেগম (৫০)। আহতরা ওই এলাকার বাসিন্দা ও স্থানীয় প্রাথমিক বিদ‌্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. মজিবুল্ল‌্যাহর স্ত্রী ও মেয়ে।
এ ঘটনায় জান্নাতুন নাঈমার শরীরের বিভিন্ন স্থানের প্রায় ২৫ শতাংশ পুড়ে যায়। অন্যদিকে তার মা নাজমা বেগমেরও হাতের প্রায় সাড়ে ৪ শতাংশ পুড়ে যায় বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

ঘটনার বর্ণনা দিয়ে আহত জান্নাতের ভাই মো. আশরাফ হোসেন জানান, একই এলাকার নুরুল ইসলাম পাটোয়ারীর ছেলে মহিউদ্দিন সুমন দীর্ঘদিন ধরে জান্নাতকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। জান্নাত তা প্রত্যাখ্যান করে। শনিবার জান্নাতকে দেখতে পাত্রপক্ষ বাড়িতে আসে। এতে করে ক্ষিপ্ত হয় সুমন। রাতে রান্নাঘরে রান্না করার সময় ওই বখাটে সুমন পলিথিনে করে পেট্রোল নিক্ষেপ করলে তা গ্যাসের চুলার আগুন ছড়িয়ে পড়ে এবং জান্নাতের গায়ে আগুন ধরে যায়। চিৎকার শুনে তাকে উদ্ধার করতে আসা মাও গুরুতর আহত হন।

এ ব্যাপারে লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের মেডিকেল অফিসার ডা. মো. ফাহাদ নাসির জানান, ওই রোগীরা হাসপাতালের জরুরি বিভাগে এলে তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করা হয়। এদের মধ্যে জান্নাতের অবস্থা মারাত্মক হওয়ায় তার মাকেসহ উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় প্রেরণ করা হয়।
লালমোহন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাকসুদুর রহমান মুরাদ বলেন, ৯৯৯ থেকে একটি কলের ভিত্তিতে হাসপাতালে গিয়ে ভুক্তভোগীদের সঙ্গে কথা বলেছি। ঘটনার সত্যতা জানতে আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। তবে এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কেউ থানায় অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY