বাংলাদেশের জয়কে হাস্যকর বলেছেন ভারতের কোচ

0
27

সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের প্রথম ম্যাচে দারুণ খেলেছে বাংলাদেশ। মালদ্বীপের মালের ন্যাশনাল স্টেডিয়ামে শুক্রবার দারুণ ফুটবল খেলে শ্রীলংকার বিপক্ষে ১-০ গোলে জয় পেয়েছে লাল-সবুজের দল।

৫৬ মিনিটে পেনাল্টি থেকে লংকান জালে বল জড়িয়েছিলেন ডিফেন্ডার তপু বর্মণ। সেটিই ছিল ম্যাচজয়ী গোল।

কিন্তু বাংলাদেশের পাওয়া এই পেনাল্টিকে হাস্যকর বলেছেন ভারত দলের ক্রোয়েশিয়ান কোচ ইগর স্টিমাচ।

একই দিনে দ্বিতীয় ম্যাচে মালদ্বীপের বিপক্ষে ১-০ গোলে জিতেছে নেপাল। দুটি ম্যাচের তুলনা করতে গিয়ে ইগর বাংলাদেশের জয় নিয়ে এমন কটাক্ষ করলেন।

গোলডটকমকে ইগর স্টিমাচ বলেন, ‘আমরা এমনভাবে খেলব যেন ফল আমাদের পক্ষে থাকে। নেপাল একবার প্রতি আক্রমণে গিয়েছে এবং ম্যাচটি তারা জিতেছে। অথচ মালদ্বীপ ভালো ফুটবল খেলেছে। অন্যদিকে হাস্যকর পেনাল্টির কল্যাণে জিতেছে বাংলাদেশ। আমরা জানি না খেলায় কী ফল হবে। আমাদের সব কিছুর সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিতে হবে।’

আগামীকাল (সোমবার) সুনীল ছেত্রীদের বিপক্ষে সাফের লড়াইয়ে নামবে বাংলাদেশ। তার একদিন আগে ভারতীয় দলের কোচের এমন তীর্যক মন্তব্য বাংলাদেশ-ভারত ম্যাচের উত্তেজনা বাড়িয়ে দিয়েছে। ম্যাচটি দেখার জন্য মুখিয়ে আছেন প্রতিবেশী দুই দেশের সমর্থকরা।

এদিকে ইগর স্টিমাচকে নিয়ে জোর সমালোচনা শুরু হয়েছে। তবে অনেকে বিষয়টিকে ইতিবাচক হিসেবে নিতে বলছেন। তাদের মতে, ম্যাচের আগে প্রতিপক্ষ দলের কোচের এমন বক্তব্য জামাল ভূঁইয়া, তপু বর্মণদের তাতিয়ে দিতে পারে।

উল্লেখ্য, সাফের উদ্বোধনী ম্যাচে ৫৬ মিনিটে বাংলাদেশের আক্রমণ ঠেকাতে গেলে হাতে বল লাগে লংকান ডিফেন্ডার ডাকসন পুসলাসের। সিরিয়ান রেফারি ফেয়ার্স টাওয়েল পেনাল্টির বাঁশি বাজান।

লংকান ফুটবলাররা রেফারির সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানান। এতে আরও বিপদ ডেকে আনেন তারা। হ্যান্ডবল করা ডাকসনকে আরেকটি হলুদ কার্ড দেখান রেফারি। দুই হলুদ কার্ডে ডাকসনকে মাঠ ছাড়তে হয়। সফল স্পট কিক থেকে শ্রীলংকার জালে বল জড়িয়ে দেন তপু।

শ্রীলংকা ১০ জনের দলে পরিণত হওয়ায় তাদের প্রবাসী ফুটবলার ডিলনকে নামায়।

কিন্তু ১০ জনের দল নিয়ে আর পেরে ওঠেনি তারা। রেফারির শেষ বাঁশিতে তপুর ওই এক গোলেই জয় নিয়ে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ শুরু করে বাংলাদেশ।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY