বাইডেনের ১ দশমিক ৯ ট্রিলিয়ন করোনা প্যাকেজ সিনেটে পাস

0
76
বাইডেনের ১ দশমিক ৯ ট্রিলিয়ন করোনা প্যাকেজ সিনেটে পাস

মহামারি করোনাভাইরাস মোকাবিলা করতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের ঘোষিত ১ দশমিক ৯ ট্রিলিয়ন ডলারের করোনা তহবিল কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সিনেটে অনুমোদন পেয়েছে। করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের সহায়তার জন্য তিনি এ প্যাকেজ ঘোষণা করেছিলেন।

শনিবার (৬ মার্চ) ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির একটি প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রেসিডেন্টের প্রস্তাবিত এই করোনা প্যাকেজ নিয়ে মার্কিন সিনেটে ভোটাভুটি হলে এই প্রস্তাবের পক্ষে ভোট পড়ে ৫০টি আর বিপক্ষে ভোট পড়ে ৪৯টি। ডেমোক্র্যাট নিয়ন্ত্রিত সিনেটে সব রিপাবলিকান সিনেটরই এই বিলের বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন বলে জানা গেছে।

জো বাইডেন প্রেসিডেন্ট হিসেবে ক্ষমতা গ্রহণের এক সপ্তাহ আগেই এই করোনা প্যাকেজের পরিকল্পনা জানিয়েছিলেন। সে হিসেবে গত ২৭ ফেব্রুয়ারি মার্কিন প্রেসিডেন্টের প্যাকেজটি অনুমোদন দেয় কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদ। ডেমোক্র্যাট নিয়ন্ত্রিত সিনেটররা মনে করছেন মঙ্গলবার (৯ মার্চ) এই প্যাকেজটি অনুমোদন পাবে।

প্যাকেজটি সিনেটে অনুমোদন পাওয়ার পর মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ‘অগ্রগতির আকেটি বড় পদক্ষেপ’ হিসেবে উল্লেখ করেছেন। এ সময় তিনি আবারও দেশবাসীর জন্য কাজ করার প্রতিজ্ঞা করেন।

রিপাবলিকান সেনেটররা বলেন, বিশাল এই ত্রাণ তহবিল অপ্রয়োজনীয় এবং করোনা মহামারির সঙ্গে এটি সম্পৃক্ত নয়। তবে এই বিলে ডেমোক্র্যাটদের বিভিন্ন বিষয়কে প্রাধান্য দেয়া হয়েছে বলে এর আগে দাবি করেন বেশ কয়েক রিপাবলিকান সদস্য।

ডেমোক্র্যাটরা জানায়, ভ্যাকসিন কার্যক্রম এবং করোনা পরীক্ষাকে আরও গতিশীল এবং অর্থনীতিকে স্থিতিশীল করতেই এই প্রণোদনা প্যাকেজের পরিকল্পনা করা হয়েছে। ত্রাণ প্যাকেজের আওতায় করোনা মোকাবিলায় খরচ করা হবে ৪১২ বিলিয়ন ডলার আর ছোট ব্যবসার ক্ষেত্রে থাকছে ৪৪০ বিলিয়ন ডলার।

এই বিলের ফলে কমপক্ষে ১০ লাখ বাংলাদেশি আমেরিকানসহ সাড়ে ৮ কোটি মার্কিন নাগরিক উপকৃত হবেন বলে মনে করা হচ্ছে। বিশাল এই বিলে যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান আরও দৃঢ় হবে বলে আশা প্রকাশ করছেন প্রেসিডেন্ট বাইডেন।

এই বিল পাসের ফলে বার্ষিক আয় ৭৫ হাজার ডলারের কম (স্বামী-স্ত্রীর দেড় লাখ ডলার) আয়ের মার্কিন নাগরিকরা মাথাপিছু এক হাজার ৪০০ ডলারের চেক পাবেন। আর বেকাররা সপ্তাহে ৪০০ ডলার করে ফেডারেল ভাতা পাবেন আগস্ট পর্যন্ত।

করোনায় যুক্তরাষ্ট্রে এখন পর্যন্ত ৫ লাখ ৩৭ হাজার মানুষ মারা গেছেন। এর মধ্যে চার শতাধিক বাংলাদেশি রয়েছেন। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে বেকারত্বের হার প্রায় ৬ দশমিক ২ শতাংশ। বিলটি পাস হওয়ায় মার্চ মাসের মধ্যেই মানুষজন আর্থিক সহায়তা পাওয়া শুরু করবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY