বাড়ছে রোগীর চাপ, সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে হাসপাতালগুলো

0
35
বাড়ছে রোগীর চাপ, সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে হাসপাতালগুলো

দেশে প্রতিদিনই বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যাও। করোনার দ্বিতীয় ঢেউ শুরু হওয়ার পর থেকে হাসপাতালগুলোতে স্বাভাবিক সময়ের তুলনায় চার থেকে পাঁচগুণ বেশি রোগী হাসপাতালে ভিড় জমাচ্ছে। বেশিরভাগ রোগীরই প্রয়োজন হচ্ছে আইসিইউ সেবা। যা সামলাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে হাসপাতালগুলোকে।

সোমবার(৫ এপ্রিল) রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতাল ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে। কেউ সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছাড়লেই ভর্তি করানো যাচ্ছে নতুন রোগী। বিশেজ্ঞরা বলছেন, এবার ৪২ থেকে ৫২ শতাংশ করোনা রোগীর ক্ষেত্রেই প্রয়োজন পড়ছে অক্সিজেন। রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল করোনা আক্রান্ত রোগীদের প্রথম পছন্দ। সেবার মান ও চিকিৎসক-নার্সদের আন্তরিক সেবার কারণে অধিকাংশ রোগীই চায় এ হাসপাতালে ভর্তি হতে। ফলে হাসপাতালে নির্ধারিত বেড সংখ্যার বাইরেও প্রায় দ্বিগুণ রোগী এসে ভর্তি হয়েছে। গত ২৮ মার্চ করোনায় আক্রান্ত হন এক নারী। বাসায় থেকেই নিচ্ছিলেন চিকিৎসা। অবস্থার অবনতি হলে ভর্তি হতে আসেন হাসপাতালে। প্রথমে গিয়েছিলেন মুগদা হাসপাতালে। সেখানে শয্যা খালি না থাকায় আসেন ঢাকা মেডিকেলের কোভিড ইউনিটে। বেশ কিছুক্ষণ অপেক্ষার পর মাপা হয় তার শরীরের অক্সিজেন মাত্রা। এরপর ভর্তি করা হয় তাকে।

কুর্মিটোলা হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, কুর্মিটোলা হাসপাতালে করোনা রোগীদের জন্য নির্ধারিত ওয়ার্ড রয়েছে। সবগুলোতেই রোগী ভর্তি। নতুন রোগী ভর্তি করানোর জন্য প্রতিদিনই তদবীর চলছে। কিন্তু রোগী এতই চাপ যে তারা কিছুই করতে পারছেন না। একই অবস্থা দেখা গেছে ঢাকা মেডিকেল কলেজে।

হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সাজমুল হক জানান, প্রতিদিই রোগীর চাপ বাড়ছে। বেশিরভাগ রোগীর আইসিইউ সেবা দিতে হচ্ছে। এজন্য রোগী ভর্তির ক্ষেত্রে তাদের হিমশিম খেতে হচ্ছে। রাজধানীর মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গিয়ে দেখা গেছে, সেখানে ৩১০টি সাধারণ শয্যার মধ্যে রোগী ভর্তি ৩১১টিতে, ফাঁকা নেই, বরং শয্যার বাইরেও অতিরিক্ত একজন রোগী ভর্তি আছে। ১৯টি আইসিইউ শয্যার কোনোটি ফাঁকা নেই।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY