বিল্ডিং কোড না মানলে ট্রেড লাইসেন্স নয়: মেয়র আতিকুল

0
65
বিল্ডিং কোড না মানলে ট্রেড লাইসেন্স নয়: মেয়র আতিকুল

রাজধানীর বনানী চেয়ারম্যান বাড়ি এলাকার একটি ছয়তলা ভবনে আগুন লাগার পর ট্রেড লাইসেন্স দেওয়ার বিষয়ে কঠোর হওয়ার হুঁশিয়ারি দেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশেনের মেয়র আতিকুল ইসলাম।

শনিবার (২১ আগস্ট) দুপুরে আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত ভবন পরিদর্শনে এসে মেয়র বলেন, বাংলাদেশ ন্যাশনাল বিল্ডিং কোড (বিএনবিসি) মানা ছাড়া ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে কোনো ভবনে ট্রেড লাইসেন্স দেওয়া হবে না।

আতিকুল ইসলাম বলেন, ডিএনসিসির আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তাকে নির্দেশ দিয়েছি, এখন থেকে যারা লাইসেন্স নেওয়ার জন্য যাবেন, তাদের ভবনের বিল্ডিং আইন মেনে ট্রেড লাইসেন্স নিতে হবে। বাংলাদেশ ন্যাশনাল বিল্ডিং কোড মানা ছাড়া কোনো ভবনে ট্রেড লাইসেন্স দেওয়া হবে না।

তিনি বলেন, এক বিল্ডিংয়ের সঙ্গে আরেক বিল্ডিংয়ের মাঝখানে কী ব্যবস্থা থাকবে, অল্টারনেটিভ সিঁড়ি কতটা চওড়া করতে হবে- সব কিছু দেখে ট্রেড লাইসেন্স দেওয়া হবে। অন্যথায় কেউ এটা পাবে না। চেয়ারম্যান বাড়ি এলাকায় যত ট্রেড লাইসেন্স আছে সেগুলো আপতত রিনিউ হবে না বলেও জানান মেয়র।

আতিকুল ইসলাম আরও বলেন, বনানীর চেয়ারম্যান বাড়ির এই বিল্ডিংটা অনেক পুরাতন। ফায়ার সার্ভিস কাজ করেছে। তবে আগুন লাগার কারণ বুঝতে পারছেন না বলে জানানা তিনি। বলেন, এখানে আগে অনেক গার্মেন্টস ছিল, সেগুলো এখান থেকে স্থানান্তরিত হয়ে গেছে। এখানে কেউ আটকে পড়েছে এমন কোনো খবর আমরা এখনও পাইনি।

এদিকে, রাজধানীর বনানীতে আনন্দ টিভির ৭ তলা ভবনের দুই ও তিনতলায় লাগা আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে। ফায়ার সার্ভিসের ১৫টি ইউনিট ৪ ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক অপারেশন অ্যান্ড মেইনটেনেন্স দেবাশীষ বর্ধন জানান, বনানীর চেয়ারম্যান বাড়ি এলাকার ওই ভবনে সকাল ৮টা ৪৫ মিনিটে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

তিনি বলেন, দুপুর ১টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে । তবে ভেতরে প্রচণ্ড তাপ ও ধোঁয়া রয়েছে। ভেতরে আমাদের টিম কাজ করছে এখনও।

তিনি আরও বলেন, ভবনের ভেতরে সলিউশন, কাঠ, পিতল এবং অনেক দাহ্য পদার্থ রয়েছে। যার কারণে প্রচুর হিট ও ধোঁয়ার সৃষ্টি হচ্ছে। তবে ফায়ার কর্মীরা এখনও পানি দিয়ে যাচ্ছে। অগ্নিকাণ্ডের কারণ ও হতাহতের কোনো তথ্য জানাতে পারেননি ফায়ার সার্ভিসের এ কর্মকর্তা।

আনন্দ টিভির এক কর্মকর্তা জানান, সকাল ৮টা ৪৫ মিনিটে ৭ তলা এ ভবনের দ্বিতীয় তলায় অগ্নিকাণ্ডের সূত্রাপাত হয়, যা পরে ভবনের তৃতীয় তলায়ও ছড়িয়ে পড়ে।

এ ভবনের চতুর্থ, পঞ্চম ও ষষ্ঠ তলাজুড়ে আনন্দ টিভির কার্যালয় বলেও জানান তিনি।

স্থানীয়রা জানান, ভবনটির তিন তলায় যেখানে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে, সেখানে এমিকন নামে একটি প্রতিষ্ঠানের গোডাউন রয়েছে। ওই গোডাউনে খেলাধুলার ক্রেস্টসহ বিভিন্ন উপহার সামগ্রী বানানো হতো। এগুলো মূলত মেটাল দিয়ে তৈরি করা হতো। আর এসব মেটালে প্রচুর পরিমাণ কেমিক্যাল থাকে। যার কারণে ভয়াবহ ধোঁয়ার সৃষ্টি হয়েছে। এই ধোঁয়া আশপাশেও ছড়িয়ে পড়ে।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY