যুক্তরাজ্যের ভ্রমণ তালিকায় লাল-এ বাংলাদেশ

0
77

করোনাভাইরাসের মহামারির কারণে বিশ্বের এক দেশ থেকে অন্য দেশে যাতায়াতে বিভিন্ন বিধিনিষেধ জারি করা হয়েছে। কিছু কিছু রাষ্ট্রতে গমন ও সেখান থেকে আগমনে একেবারেই নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে। এবার এই সংক্রান্ত একটি তালিকা প্রকাশ করেছে যুক্তরাজ্য। সেখান থেকে জানা যাবে কোনো দেশে নাগরিকরা যেতে পারছেন আর কোনো দেশে যেতে পারছেন না।

জানা যায়, সংক্রমণের হার ও ঝুঁকি বিবেচনায় বিভিন্ন দেশকে ‘ট্রাফিক লাইট’ ব্যবস্থায় তিনটি ক্যাটাগরিতে তালিকাভুক্ত করেছে যুক্তরাজ্য। এর মধ্যে সবুজ তালিকায় থাকা দেশে বিনাবাধায় ভ্রমণ করা যাবে। আম্বার (হলুদাভ রঙ) তালিকাভুক্ত দেশে বাড়তি সতর্কতা মানতে হবে এবং লাল তালিকায় থাকা দেশগুলো ভ্রমণে যাওয়া প্রায় নিষিদ্ধ।

গতকাল শুক্রবার (৭ মে) বহুল প্রত্যাশিত সেই সবুজ তালিকা প্রকাশ করেছে ব্রিটিশ প্রশাসন। তালিকায় রয়েছে পর্তুগাল, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, সিঙ্গাপুর, ব্রুনেই, আইসল্যান্ড, ফারো দ্বীপপুঞ্জ, জিব্রাল্টার, ফকল্যান্ড দ্বীপপুঞ্জ, সাউথ জর্জিয়া ও সাউথ স্যান্ডউইচ দ্বীপপুঞ্জ; সেন্ট হেলেনা, অ্যাসেনশন এবং ত্রিস্তান দা কুনহা ও ইসরায়েল।

আম্বার তালিকাভুক্ত দেশগুলো হলোঃ ফ্রান্স, গ্রিস, স্পেন ও ইতালিকে । অর্থাৎ, এসব দেশ ভ্রমণ করে ফিরলে অন্তত ১০ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে।

একই সঙ্গে তুরস্ক, মালদ্বীপ ও নেপালকে আম্বার থেকে লাল তালিকায় পাঠিয়েছে ব্রিটিশ কর্তৃপক্ষ। অর্থাৎ এই দেশগুলো ভ্রমণে একপ্রকার নিষেধাজ্ঞাই কার্যকর হচ্ছে।

বাংলাদেশসহ যুক্তরাজ্যের লাল তালিকায় আগে থেকেই নাম রয়েছে ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকা, সংযুক্ত আরব আমিরাতের মতো দেশগুলোর।

আগামী ১৭ মে থেকে কার্যকর হচ্ছে নতুন ভ্রমণ নির্দেশনা। অর্থাৎ সেদিন থেকে সবুজ তালিকায় থাকা দেশগুলো ভ্রমণে যাওয়ার সুযোগ পাবেন ব্রিটিশরা।

 

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY