‘শেখ হাসিনারে আল্লা যেন আরো ম্যালাদিন বাঁচাইয়া রাখে’

0
50

সরকার আমাগো তালিকা কইরা যেইভাবে আইজ চাইল ডাইল তেল দিল, হেইডা জীবনেও ভুলতাম না। আল্লা যেন শেখ হাসিনারে আরো ম্যালাদিন আমাগো মাঝে বাঁচাইয়া রাখে।’

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আজ শনিবার দুপুরে করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত স্থানীয় এক হাজার অসহায় ও দরিদ্র মানুষের মাঝে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মানবিক খাদ্য সহায়তা প্রদানকালে সালেহা বেগম নামের এক নারী কালের কণ্ঠের কাছে এভাবেই আনন্দের সঙ্গে উপরোক্ত কথাগুলো বলছিলেন।

kalerkanthoজানা গেছে, সারা দেশে করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত অসহায় দরিদ্র জনগোষ্ঠীর মাঝে সরকারের ত্রাণ ও দুর্যোগ মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে মানবিক খাদ্য সহায়তা বিতরণের কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়।

জাতীয় ওই কর্মসূচির আওতায় আজ দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসনের আয়োজনে ও স্থানীয় উপজেলা প্রশাসনের ব্যবস্থাপনায় নবীনগর উপজেলার এক হাজার অসহায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর এ মানবিক খাদ্য সহায়তা সুষ্ঠুভাবে তুলে দেওয়া হয়।

খাদ্য সহায়তার প্রতিটি প্যাকেটে ১০ কেজি চাল, চিনি, তৈল, সেমাই, পেঁয়াজ, ডালসহ নানা উপকরণ রয়েছে।

অনুষ্ঠানে ইউএনও একরামুল ছিদ্দিকের সভাপতিত্বে প্রধানমন্ত্রী ‘শেখ হাসিনার উপহার’ নামের এক হাজার খাদ্যের প্যাকেটগুলো প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে দরিদ্রদের মাঝে বিতরণ করেন স্থানীয় সাংসদ এবাদুল করিম বুলবুল। এতে বিশেষ আমন্ত্রিত অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক হায়াত উদ দৌলা খান।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান মনির, মেয়র অ্যাডভোকেট শিব শংকর দাস, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মকবুল হোসেন, সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইকবাল হাসান, ওসি আমিনুর রশীদসহ আওয়ামী লীগের স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।

সরকারের স্বাস্থ্যবিধি ও যথাযথ দূরত্ব মেনে এ বিশাল কর্মযজ্ঞ নিয়ে ব্যবস্থাপনার মূল দায়িত্বে থাকা নবীনগরের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) একরামুল ছিদ্দিক কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘এক হাজার ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের তালিকা প্রণয়নসহ এই বিশাল কর্মযজ্ঞ সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হওয়ায় এ কাজে যাঁরা সংশ্লিষ্ট ছিলেন, তাদের সকলের প্রতি উপজেলা প্রশাসন বিশেষ ধন্যবাদ জ্ঞাপন করছে।’

এদিকে এ অনুষ্ঠানের পরপরই স্থানীয় খাদ্য গুদাম প্রাঙ্গণে কৃষকদের কাছ থেকে সরকার নির্ধারণ মূল্যে ধান সংগ্রহ কার্যক্রমেরও উদ্বোধন করেন স্থানীয় সাংসদ এবাদুল করিম।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY