সীমান্তবর্তী জেলাগুলোতে বাড়ছে সংক্রমণ, কঠোর লকডাউনের তাগিদ

0
60
সীমান্তবর্তী জেলাগুলোতে বাড়ছে সংক্রমণ, কঠোর লকডাউনের তাগিদ

দেশের সীমান্তবর্তী জেলাগুলোতে আশংকাজনক হারে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। লকডাউনের মধ্যেই চাঁপাইনবাবগঞ্জে ২৪ ঘন্টায় করোনা শনাক্তের হার দাড়িয়েছে ৭১ শতাংশে।

সংক্রমণ বাড়ছে সাতক্ষীরা, কুষ্টিয়া, যশোর, নাটোরসহ অন্য সীমান্তবর্তী জেলাগুলোতেও। নাটোরে তিনদিন ধরে বাড়তে বাড়তে করোনা সংক্রমণের হার ছুঁয়েছে ৪০ শতাংশ। যশোরে একমাসে ৫ শতাধিক রোগীর দেহে শনাক্ত হয়েছে করোনা। এর মধ্যে ৭ জনের দেহে মিলেছে করোনা ভারতীয় ধরন।

সাতক্ষীরাতেও এক সপ্তাহ ধরে করোনা শনাক্তের হার ৩৫ শতাংশের উপরে। এর মধ্যেই সীমান্ত দিয়ে বিশেষ ছাড়পত্র নিয়ে ভারত থেকে দেশে ফিরছেন অনেকে। তবে সবাইকে থাকতে হচ্ছে কোয়ারেন্টিনে। সাধারণ মানুষের মধ্যেও রয়েছে করোনা নিয়ে উদাসীনতা।

সংক্রমণের হার বাড়তে থাকায় সীমান্তবর্তী জেলাগুলোতে কঠোর লকডাউন জারির সুপারিশ পাওয়ার কথা জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী।

দেশে করোনার নতুন হটস্পট হয়ে ওঠা চাঁপাইনবাবগঞ্জে করোনার সংক্রমণ বাড়তে শুরু করে গত ঈদুল ফিতরের পর থেকে। জেলায় এ পর্যন্ত ১ হাজার ৭২৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। ৬০০–এর মতো শনাক্ত হয়েছে গত ঈদের পর থেকে। ঈদের আগে নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ছিল ১৪ শতাংশ, সেখানে কয়েক দিনের মধ্যে বাড়তে বাড়তে ২৬ মে ৫৫ শতাংশ এবং তারপর ৬২ শতাংশে উঠেছিল। তবে পরে একটু কমে কিন্তু শনিবার থেকে আবারো বাড়তে শুরু করেছে।

ভারতের সীমান্তবর্তী জেলা চাঁপাইনবাবগঞ্জে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে, সেই সঙ্গে দেখা দিয়েছে হাসপাতালের শয্যা ও অক্সিজেনের সংকট। অক্সিজেন প্রয়োজন এমন অনেক রোগী হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার সুযোগ না পেয়ে বাড়িতে চলে যাচ্ছেন। আবার অনেকে চলে যাচ্ছেন পার্শ্ববর্তী রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও নাটোর সদর হাসপাতালে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে এখন পর্যন্ত করোনায় ৩২ জনের মৃত্যু হয়েছে। তাদের মধ্যে ১৭ জন মারা গেছেন গত ১৩ মে থেকে। গত শুক্রবার চারজনের মৃত্যু হয়েছে। তবে শনিবার চাঁপাইনবাবগঞ্জে করোনায় কারো মৃত্যু হয়নি বলে সিভিল সার্জন জানিয়েছেন। লক ডাউনও চলছে সীমান্তবর্তী এই জেলায়।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY