১২ বছরে উন্নয়নে অপ্রতিরোধ্য গতি : কাদের

0
51
বিএনপির অপপ্রচারে ভ্যাকসিনের সংকট হবে না: কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘১২ বছর আগের পিছিয়েপড়া বাংলাদেশ আজ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আলোর পথে অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে উন্নয়নের মহাসড়ক ধরে। আর এটিই বিএনপির গাত্রদাহের কারণ।’

তিনি বলেন, ‘১২ বছর আগের বাংলাদেশ ও আজকের বাংলাদেশ উন্নয়ন ও অর্জনে আকাশ-পাতাল পার্থক্য।’

শনিবার (১৯ জুন) চট্টগ্রাম মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের ত্রিবার্ষিক ভার্চুয়াল সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

রাজধানীর ২৩ বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ ও সাধারণ সম্পাদক আফজালুর রহমান বাবুসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ সম্মেলনে যুক্ত হন।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘মহামারি করোনাকালেও বাংলাদেশ শ্রীলঙ্কাকে ২০০ মিলিয়ন ডলার এবং সুদানকে ৭ দশমিক ৭ মিলিয়ন ডলার ঋণ সহায়তা দিয়েছে, এতেই বোঝা যায় বাংলাদেশের অবস্থান আজ কোথায় এসে পৌঁছেছে।’

বাংলাদেশের মাথা পিছু আয় আজ ২২২৭ ডলার, যা কল্পনাও করা যায় না বলে মনে করেন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের এই বিশাল উন্নয়ন-অর্জনই বিএনপির গাত্রদাহের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এজন্যই বিএনপি নানা ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে দেশের এই অগ্রযাত্রা থামিয়ে দিতে চায়।’

দেশকে অস্থিতিশীল করে ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করতে চায় বিএনপি উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘শেখ হাসিনা সরকারের অভূতপূর্ব উন্নয়নের সুফল জনগণ পেতে শুরু করছে। উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির এই ইতিবাচক ধারা বাধাগ্রস্ত করতেই বিএনপি এবং তাদের দোসররা আদাজল খেয়ে মাঠে নেমেছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘এদেশে একটি দল আছে, যারা দিনের আলোতে রাতের অন্ধকার দেখে। যারা পূর্ণিমার ঝলমলে আলোতে অমাবস্যার অন্ধকার দেখে। দলটির নাম বিএনপি। তারা অপপ্রচারের মাধ্যমে এদেশকে পিছিয়ে নিয়ে যাচ্ছে।’

সম্মেলন আয়োজনকারীদের উদ্দেশে মন্ত্রী বলেন, ‘আপনাদের সম্মেলন দ্রুত শেষ করার চেষ্টা করেন। এ সময় অনুষ্ঠান এক-দেড় ঘণ্টার বেশি করা ভালো না। অতিথিও কম দাওয়াত দেয়া উচিৎ। কারণ দেশে করোনার সংক্রমণ বাড়তির দিকে। বিশেষ করে রাজশাহী অঞ্চলে করোনার প্রাদুর্ভাব বেড়েই চলছে। আমাদের প্রতিবেশী দেশ ভারতে বিশেষজ্ঞরা করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা করছেন।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বর্তমান কেন্দ্রীয় সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ ও সাধারণ সম্পাদক এ.কে.এম আফজালপুর রহমান বাবুর নেতৃত্বে স্বেচ্ছাসেবক লীগ এগিয়ে যাচ্ছে। তাদের কর্মকাণ্ডে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বেশ সন্তুষ্ট। কারণ তারা প্রধানমন্ত্রীর যেকোনো কর্মসূচি আন্তরিকতার সঙ্গে বাস্তবায়ন করছেন। বিশেষ করে করোনাকালে স্বেচ্ছাসেবক লীগ ত্রাণ ও বিভিন্ন ধরনের সহযোগিতা নিয়ে জনগণের পাশে দাঁড়িয়েছেন।’

 

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY