বাহরাইন ইসরায়েলের অধিকৃত ভূমির পণ্য আমদানি করবে না বলে জানায়

0
138

ইসরায়েল কর্তৃক ফিলিস্তিনের অধিকৃত অঞ্চলে তৈরি পণ্য আমদানি করবে না বলে জানিয়েছে বাহরাইন। সম্প্রতি বাহরাইনের বাণিজ্য মন্ত্রীর বক্তব্যকে অস্বীকৃতি জানিয়ে এ খবর জানায় দেশটির বার্তা সংস্থা বিএনএ।

এর আগে ইসরায়েল সফরকালে বাহরাইনের শিল্প, বাণিজ্য ও পর্যটন মন্ত্রী জায়েদ বিন রাশিদ আল জায়ানি আমদানি বিষয়ে খোলাখুলি মন্তব্যে বলেন, মানামা ইসরায়েলের তৈরি ও ইসরায়েলের অধিকৃত অঞ্চল পশ্চিম তীর ও গোলান ভূমিতে তৈরি পণ্য আমদানিতে কোনো তফাত করবে না।

বাহরাইনের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা এক বিবৃতি জানায়, ‘মন্ত্রীর বক্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা করা হয়েছে। জাতিসংঘের প্রস্তাবনা মানার ব্যাপারে বাহরাইন সরকারের দৃঢ় অবস্থানের প্রতি মন্ত্রণালয় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।’

ফিলিস্তিনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী রিয়াদ আল মালিকি জানান, এক ফোনালাপে বাণিজ্যমন্ত্রীর মন্তব্যকে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন বাহরাইনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবদুল লাতিফ। আল মালিকি বলেন, তাঁর মন্তব্য ফিলিস্তিন ইস্যুর প্রতি বাহরাইনের সমর্থনের পুরোপুরি বিপরীত।’

ইউরোপীয় ইউনিয়নের নির্দেশনা মতে দখল করা বসতির পণ্যগুলো ইউনিয়নভূক্ত দেশে রপ্তানি হলে তা বিশেষ শ্রেণিভূক্ত হতে হবে।

গত ১৫ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের পৃষ্ঠপোষকতায় ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করে মধ্যপ্রাচ্যের আরব আমিরাত ও বাহরাইন। এ সময় ইসরায়েল ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীরের বসতি স্থাপনের পরিকল্পনা স্থগিত রাখে। অধিকাংশ বিশ্বনেতৃবৃন্দ এটিকে বেআইনি বলে আখ্যায়িত করে।

এর আগে গত মাসে ইসরায়েল ও ইসরায়েলের দখলকৃত বসতিতে তৈরি পণ্য আমদানির ক্ষেত্রে কোনো পার্থক্য করবে না বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের ট্রাম্প প্রশাসন।

২০২১ সালের মধ্যে ইসরায়েল বাহরাইনের সঙ্গে প্রতিরক্ষা ও পর্যটন খাত ছাড়াও প্রায় ২২০ মিলিয়ন ডলারের বাণিজ্যিক চুক্তি সম্পন্ন করতে চায়।

পশ্চিম তীর, গাজা উপত্যাকা ও পূর্ব জেরুজালেমকে রাজধানী করে একটি স্বাধীন ফিলিস্তিন গঠন করা ফিলিস্তিনিদের দীর্ঘকালের দাবী। কিন্তু ১৯৬৭ সালের পর থেকে ইসরায়েল ফিলিস্তিনের এসব ভূখণ্ডে ইহুদি বসতি স্থাপন করে যাচ্ছে। ইসরায়েলের দখলদারিত্ব দ্বি-রাষ্ট্রীয় শান্তি আলোচনার প্রধান অন্তরায় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

সূত্র : রয়টার্স

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY