করোনা পজিটিভ ব্যক্তি যুক্তরাষ্ট্রে ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা

0
60
করোনা পজিটিভ ব্যক্তি যুক্তরাষ্ট্রে ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা
করোনা পজিটিভ ব্যক্তি যুক্তরাষ্ট্রে ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা

যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করতে যাওয়া সব বিমান ভ্রমণকারীকে যাত্রা শুরুর আগে করোনা পরীক্ষায় নেগেটিভ হওয়া লাগবে। মঙ্গলবার দেশটি এমন ঘোষণা দিয়েছে।

এমন একসময় এ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে, যখন যুক্তরাষ্ট্রে একদিনেই প্রায় সাড়ে চার হাজার লোকের মৃত্যু হয়েছে প্রাণঘাতী করোনায়। মহামারী সংক্রমণের সবচেয়ে খারাপ দিনটি পার করেছে বিশ্বের শীর্ষ অর্থনীতির দেশটি।

বার্তা সংস্থা এএফপির খবর বলছে, ২৬ জানুয়ারি এই নীতি কার্যকর করা হবে। ব্রিটেনকে লক্ষ্যবস্তু বানিয়ে বিদ্যমান পদক্ষেপগুলোর সময়সীমা বাড়ানো হবে।

বি১১৭ নামে করোনার একটি ধরনের কারণে আক্রান্তের সংখ্যা ব্যাপকভাবে বেড়েছে। জনপ্রতি আক্রান্তের সংখ্যায় আয়ারল্যান্ড বর্তমানে সবার চেয়ে এগিয়ে আছে। পরীক্ষার পদক্ষেপ বাড়াতে মঙ্গলবার পদক্ষেপ নেওয়ার কথা জানিয়েছে দেশটি।

যুক্তরাষ্ট্রের রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্রের পরিচালক রবার্ট ডেফিল্ড জানিয়েছেন, পরীক্ষার মাধ্যমে সব ঝুঁকি দূর করা যাবে না। ঘরের অবস্থান করার সময়, মাস্ক পরা, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখাসহ প্রতিদিনের পূর্ব সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।

আক্রান্তের দিক থেকে এখনও বিশ্বের শীর্ষে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে তিন লাখ ৮০ হাজার মানুষ করোনায় মারা গেছেন। অর্থাৎ ভাইরাসটিতে বিশ্বের মোট মৃত্যুর এক-পঞ্চমাংশই যুক্তরাষ্ট্রে হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় যুক্তরাষ্ট্রে দুই লাখ ৩৫ হাজারের মতো লোকের নতুন করে করোনায় পজিটিভ এসেছে। মৃত্যু হয়েছে চার হাজার ৪৭০ জনের।

বিশ্বে এখন পর্যন্ত ৯ কোটি ১০ লাখ লোক এই অতিসংক্রামক ব্যাধিতে আক্রান্ত হয়েছেন।

মঙ্গলবার জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের বরাতে এমন তথ্য পাওয়া গেছে। গত সপ্তাহে ক্যাপিটল হিলে দাঙ্গা থেকে বাঁচতে নিরাপদ আশ্রয়ে চলে যাওয়ার সময় মাস্ক পরতে অস্বীকার করায় রিপাবলিকান সহকর্মীদের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ডেমোক্র্যাটদলীয় সদস্যরা।

করোনায় পজিটিভ আসা তৃতীয় ডেমোক্র্যাটদলীয় প্রতিনিধি ব্রাড সচনেডার বলেন, আমি কঠোর আইসোলেশনে আছি। নিজের স্ত্রীর স্বাস্থ্যকে ঝুঁকিতে ফেলে দিয়েছি। মাস্কবিরোধীদের ঔদ্ধত্য ও স্বার্থপরতার কারণে তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

ক্যালিফোর্নিয়ার একটি ছোট্ট গ্রামীণ শহরের অ্যাপল ভ্যালির সেন্ট ম্যারি হাসপাতালের কর্মকর্তা ক্যারি ম্যাকগুইর বলেন, আমার গোটা ক্যারিয়ারের সবচেয়ে অন্ধকার সময় যাচ্ছে এখন। আমাকে ব্যক্তিগতভাবে এমন সব লোকের মুখোমুখি হতে হয়, যারা তাদের প্রিয়জনদের মৃত্যু দেখছেন। এটি সত্যিই ভারী কঠিন।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY