ছেলেকে হত্যার অভিযোগ মায়ের বিরুদ্ধে

0
89
প্রতিকী-ছবি

ভোলার চরফ্যাশনে ইশান নামের দেড় বছরের শিশুপুত্রকে ডোবার পানিতে ফেলে হত্যার অভিযোগ উঠেছে মা ঝুমুর বেগম ও নানা জাহাঙ্গীর চকিদারের বিরুদ্ধে।

আবুবক্করপুর ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের গৃহবধূ ঝুমুরের বাবার বাড়ির ঘরের পাশের ডোবা থেকে ওই শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়। পুলিশ নিহত শিশুর লাশ উদ্ধার করে বুধবার ময়নাতদন্তের জন্য ভোলা মর্গে পাঠায়।

শিশুর বাবা কাউছার অভিযোগ করেন, একই গ্রামের ইউনিয়ন মৎস্য লীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর চকিদারের মেয়ে ঝুমুর বেগমের সঙ্গে ১০ বছর আগে বিয়ে হয়। তাদের ঘরে দুই সন্তান রয়েছে।

কাউছার তার কর্মস্থলে থাকায় জমি কেনার জন্য স্ত্রী ঝুমুর ও শ্বশুর জাহাঙ্গীর চকিদারকে টাকা দেন। কিন্তু বাবা মেয়ে মিলে তার টাকায় কেনা জমি শ্বশুরের নামে লিখে নেয়। এ নিয়ে স্ত্রী ও তার শ্বশুর পরিবারের সঙ্গে বিরোধ শুরু হয়। বিরোধকে পুঁজি করে শ্বশুর তার দুই সন্তানসহ মেয়ে ঝুমুরকে জাহাঙ্গীর চকিদার তার বাড়িতে নিয়ে যান।

পরে মেয়েকে যৌতুকের জন্য মারধরের অভিযোগ তুলে ভোলা নারী ও শিশু ট্রাইব্যুনালে মামলা দায়ের করেন। ঘটনার দিন তিনি কর্মস্থল কুমিল্লায় ছিলেন কাউছার। তার অভিযোগ, স্ত্রী ঝুমুর পথের কাটা সরাতে তার দেড় বছরের শিশুপুত্র ইশানকে বাড়ির পাশের ছোট একটি ডোবায় ফেলে পানিতে ডুবিয়ে হত্যা করেন। খবর পেয়ে দুলারহাট থানা পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করেন। বুধবার ময়নাতদন্তের জন্য ভোলা মর্গে পাঠান।ঘটনার পরপর শিশুর মা আত্মগোপনে থাকায় তার বক্তব্য জানা যায়নি।

তবে জাহাঙ্গীর চকিদার জানান, তার নাতি ইশান ডোবায় পড়ে মারা গেছে।

দুলারহাট থানার ওসি মোরাদ হোসেন জানান, স্বামী-স্ত্রী ও শ্বশুরের মধ্যে বিবাদ চলমান রয়েছে। শিশুকে হত্যার দাবি উঠলে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে মৃত্যুর আসল কারণ জানা যাবে।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY