বাসযোগ্য শহরের সূচকে ঢাকার ৪ ধাপ উন্নতি : তাপস

0
101
সংগৃহীত

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস জানিয়েছেন, ইকোনোমিস্ট ইন্টিলিজেন্স ইউনিটের বাসযোগ্য শহরের সূচকে ঢাকা ৪ ধাপ উন্নীত হয়েছে। গত পরশু এ প্রতিবেদন আবার প্রকাশিত হয়েছে। আগে আমরা ছিলাম নিচের দিক থেকে ৩ নম্বরে। এখন আমরা ৭ নম্বরে উন্নীত হয়েছি। ঢাকা শহর অগ্রগতির পথে হাঁটছে।

রোববার (২৬ জুন) পানি উন্নয়ন বোর্ডের নিয়ন্ত্রণাধীন ঢাকা সমন্বিত বন্যা প্রতিরোধ প্রকল্পের আওতায় নির্মিত ৩৭টি রেগুলেটর/ড্রেনেজ আউটলেট স্ট্রাকচার এবং বুড়িগঙ্গা নদীর ডান তীর সংরক্ষণ প্রকল্পের আওতায় পানি নিষ্কাশনের জন্য নির্মিত ১৮টি ড্রেনেজ আউটলেট স্ট্রাকচার ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের কাছে হস্তান্তর অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

এসময় তিনি বলেন, ঢাকা শহরে বন্যার আশঙ্কা রয়েছে। প্রত্যেকটা স্লুইসগেট মেরামত ও রক্ষণাবেক্ষণ করা হবে। ঢাকা শহরকে আর পানিতে ডুবতে দেব না। ঢাকাকে বাসযোগ্য শহরে উন্নীত করা হবে।

যে খালগুলো পানি উন্নয়ন বোর্ডের আওতাধীন রয়েছে সেগুলো সিটি করপোরেশনে হস্তান্তরের আহ্বান জানান তিনি।

এছাড়া তিনি বলেন, স্বাস্থ্যখাতে অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে।

এসময় তিনি পদ্মা সেতুর জন্য প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন ও কৃতজ্ঞতা জানান।

জলাবদ্ধতা মুক্ত নগর পেতে হলে যেসব খাল এখনো সিটি করপোরেশনকে দেয়া হয়নি, সেগুলো দেয়ার জন্য স্থানীয় সরকার মন্ত্রীর প্রতি আহ্বান জানান ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম।

তিনি বলেন, সিটি করপোরেশন বসে নেই, তারা কাজ করে যাচ্ছে। জনগণের সেবাই মূল লক্ষ্য। ঢাকা শহরকে জলাবদ্ধতামুক্ত করতে হলে খালগুলো দখলমুক্ত করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, খালের মধ্যে পয়ঃনিষ্কাশনের লাইন কেউ দিতে পারবে না। খালে দূষিত পানি প্রবেশ করতে দেয়া হবে না।

আগামী ১ সেপ্টেম্বর থেকে এটি কার্যকর করা হবে বলে জানান উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র। তিনি বলেন, নগরবাসী গালিগালাজ করলে তার দায়িত্ব পানি উন্নয়ন বোর্ডকে নিতে হবে। নগরবাসীকে সেবা দিতে হবে।

ঢাকার পূর্ব অঞ্চলকে কীভাবে বন্যা মুক্ত রাখা যায় সে বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

এসময় তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রশংসা করে বলেন, পদ্মা সেতু নির্মাণ করে প্রধানমন্ত্রী সারা বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন।

পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিত ফারুক বলেন, নগরবাসীকে ভালো একটা শহর উপহার দেয়ার জন্য সরকার কাজ করছে।

এসময় স্থানীয় সরকার মন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেন, যারা খালে ময়লা ফেলে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি করছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। শুধু জরিমানা না, সিলগালা করতে হবে।

ঢাকা গোটা দেশকে রিপ্রেজেন্ট করে উল্লেখ করে তিনি বলেন, দীর্ঘদিনের অব্যবস্থাপনায় ঢাকা শহরের আজকে এ অবস্থা। ঢাকা শহরের অনেকগুলো ব্রিজ বাধার সৃষ্টি করেছে। ব্রিজগুলো শনাক্ত করা হয়েছে। ব্রিজগুলো ভাঙতে হবে।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেন, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে সিটি করপোরেশনকে সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে। আগে ওয়াসা থেকে সিটি করপোরেশনে খাল হস্তান্তর করা হয়েছিল। সেই খালের সুফল নগরবাসী পেতে শুরু করেছে।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY