ঝিনাইদহ পৌরসভায় চলছে ভোটগ্রহণ

0
59
ঝিনাইদহ পৌরসভায় চলছে ভোটগ্রহণ

ঝিনাইদহ পৌরসভায় শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ চলছে। সকাল ৮টা থেকে শুরু হয় এ ভোটগ্রহণ, একটানা চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের ৪৭ কেন্দ্রের ২৬৫টি কক্ষে ইভিএমের মাধ্যমে ভোট দিচ্ছেন পৌরবাসী।

এবারের নির্বাচনে ৮২ হাজার ৬৯৫ জন তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। এর মধ্যে পুরুষ ৪০ হাজার ৪৪৬ জন এবং নারী ৪২ হাজার ২৪৯ জন। নির্বাচনে মেয়র পদে ৪, কাউন্সিলর পদে ৬৪ ও সংরক্ষিত নারী আসনের কাউন্সিলর পদে ১৯ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

নির্বাচনের পরিবেশ সুষ্ঠু রাখতে ১৮ নির্বাহী ও ৩ জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, আর ৫ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়াও ৩৫৫ পুলিশ সদস্য ও ৮০১ আনসার সদস্য নিয়োজিত রয়েছেন।

রিটার্নিং অফিসার ওলিউল ইসলাম জানান, নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ প্রার্থী আব্দুল খালেক, স্বতন্ত্র প্রার্থী (নারকেল গাছ প্রতীক) কাইয়ুম শাহরিয়ার জাহেদী, স্বতন্ত্র প্রার্থী (মোবাইল ফোন প্রতীক) মিজানুর রহমান (মাসুম) ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী সিরাজুল ইসলাম (হাতপাখা প্রতীক) প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এ ছাড়াও সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৬৪ এবং সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ১৯ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

ঝিনাইদহ পৌরসভার সবশেষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় ২০১১ সালের ১৩ মার্চ। মেয়াদ শেষ হয় ২০১৬ সালের এপ্রিলে। কিন্তু ২০১৫ সালে সীমানা জটিলতার মামলা করে পার্শ্ববর্তী সুরাট ও পাগলা কানাই ইউনিয়ন। এতে বন্ধ হয়ে যায় পৌরসভার নির্বাচন। গত বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর উচ্চ আদালতের আদেশে জটিলতা কাটে। এরপর নির্বাচন কমিশন পৌরসভা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে গত ২৫ এপ্রিল।

গত ১৫ জুন নির্বাচনে ভোটগ্রহণের তারিখ ছিল। নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে আওয়ামী লীগ প্রার্থী আব্দুল খালেকের প্রার্থিতা বাতিল করে নির্বাচন কমিশন। আব্দুল খালেক হাইকোর্টে রিট করে প্রার্থিতা ফিরে পান। এরপর আইনি জটিলতার কারণে গত ১২ জুন নির্বাচন স্থগিত করে নির্বাচন কমিশন। সেই জটিলতা কাটলে গত ৪ সেপ্টেম্বর নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আহসান হাবিব খান ঝিনাইদহে এক মতবিনিময় সভায় ১১ সেপ্টেম্বর নির্বাচনের দিন ঘোষণা করেন।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY