যুক্তরাষ্ট্রে বসে অফিস করতে চান ওয়াসার এমডি

0
61
সংগৃহীত

ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) তাকসিম এ খান ছয় সপ্তাহের জন্য যুক্তরাষ্ট্র যাওয়ার আবেদন করেছেন। তবে এ সময় তিনি ছুটি না নিয়ে অনলাইনে ডিউটিতে থাকবেন বলে উল্লেখ করেছেন। বিষয়টি নিয়ে আবারও আলোচনা-সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে।

এর আগে তাকসিম এ খান ঢাকা ওয়াসা বোর্ডের কাছে যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়া এবং সেখানে অবস্থানকালে ভার্চুয়ালি অফিস করার অনুমতি চেয়ে আবেদন করেন। কিন্তু সেই আবেদন নাকচ করে দেয় ওয়াসা বোর্ড। বরং তাকে দুই মাসের পূর্ণ ছুটি দেয়া হয়। বোর্ডে সিদ্ধান্ত হয়, এ সময় তিনি ভার্চুয়ালি অফিস করতে পারবেন না।

তবে ৭ সেপ্টেম্বর স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব বরাবর ছুটির আবেদন করেন তাকসিম এ খান। সেই ছুটির আবেদনে দেখা যায়, ওয়াসা বোর্ডের সিদ্ধান্তকে পাশ কাটিয়ে ভার্চুয়ালি অফিস করবেন বলে জানানো হয়েছে।

আবেদনে বলা হয়, নিজের চিকিৎসা এবং যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করা পরিবারের সদস্যদের (স্ত্রী, পুত্র ও পুত্রবধূ) সঙ্গে দেখা করতে যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়া প্রয়োজন। আগামী ২৪ সেপ্টেম্বর থেকে ৪ নভেম্বর পর্যন্ত অথবা যাত্রার তারিখ থেকে ৬ সপ্তাহের জন্য তিনি যুক্তরাষ্ট্রে গমনের অনুমতি চান। যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থানের সময় তিনি ‘অন ডিউটি’তে থাকবেন।

তবে ঢাকা ওয়াসা বোর্ডের সিদ্ধান্তকে পাশ কাটিয়ে তাকসিম এ খানের ভার্চুয়ালি অফিস করার বিষয়ে মন্ত্রণালয়ে আবেদন প্রসঙ্গে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন বোর্ডের সদস্যরা।

এ বিষয়ে ঢাকা ওয়াসা বোর্ডের চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা গণমাধ্যমকে বলেন, বোর্ড থেকে ছুটির সিদ্ধান্ত হয়েছিল। তবে তিনি অন ডিউটি থাকবেন, বিষয়টি জানা নেই। ছুটি মঞ্জুরের সময় এমন সিদ্ধান্ত হয়নি।

ওয়াসার উপপ্রধান জনতথ্য কর্মকর্তা এ এম মোস্তফা তারেক জানিয়েছেন, এমডির ছুটির আবেদনের বিষয়ে তিনি কিছু জানেন না।

প্রসঙ্গত, বিভিন্ন সময় আলোচিত এবং সমালোচিত হয়েছেন তাকসিম এ খান। ২০০৯ সাল থেকে তাকসিম এ খান ঢাকা ওয়াসার এমডি পদে রয়েছেন। প্রথম নিয়োগের পর থেকে মোট ছয়বার তার মেয়াদ বাড়ানো হয়। তার বিরুদ্ধে কর্মচারী তহবিলের টাকা নয়ছয় ছাড়াও বিস্তর দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY